advertisement
আপনি পড়ছেন

পাকিস্তান সরকারকে পার্লামেন্ট ভেঙ্গে নির্বাচনের ঘোষণা দিতে ছয়দিনের আলটিমেটাম দিয়েছেন পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) চেয়ারম্যান ইমরান খান। এ সময় তিনি সরকারকে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, অন্যথায় পুরো জাতিকে সাথে নিয়ে রাজধানীতে ফিরবেন। আজ বৃহস্পতিবার সকালে ইসলামাবাদের জিন্নাহ অ্যাভিনিউতে বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন। খবর দ্য নিউজ।

imran in islamabadইসলামাবাদের রাস্তায় ইমরান খান

ইমরান তার ভাষণে লংমার্চে বাধা দেওয়ায় 'আমদানি করা' সরকারের নিন্দা জানান। পাশাপাশি তিনি লংমার্চকে বাধা না দিতে এবং আটক না করতে সরকারকে নির্দেশনা দেয়ায় সুপ্রিম কোর্টকে (এসসি) ধন্যবাদ দিয়েছেন। তিনি দাবি করেন, এ লংমার্চে আসার পথে করাচিসহ বিভিন্ন জায়গায় পুলিশি হামলায় ৫ জন পিটিআই সমর্থকের মৃত্যু হয়েছে। প্রকৃত স্বাধীনতার সংগ্রামে অংশ নেওয়ায় জন্য মহিলা পিটিআই বিক্ষোভকারীদের প্রশংসা করেছেন ইমরান।

সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী জানান, তিনি খাইবার পাখতুনখোয়া থেকে ৩০ ঘন্টা ভ্রমণ করে ইসলামাবাদে পৌঁছেছেন। সরকার আমাদের আজাদি মার্চকে দমন করার জন্য সব রকমের চেষ্টা করেছে, তারা শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদে টিয়ারগ্যাস ব্যবহার করেছে, আমাদের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়েছে। কিন্তু আমি জাতিকে দাসত্বের ভয় থেকে মুক্ত হতে দেখছি।

imran khan 59ইমরান খান

নতুন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করার জন্য সরকারকে একটি সময়সীমা দেওয়ার সময় ইমরান খান বলেন, বিধানসভা ভেঙে জুনের মধ্যে সাধারণ নির্বাচন ঘোষণার জন্য সরকারকে ছয়দিনের আলটিমেটাম দিচ্ছি। অন্যথায় আবারো ইসলামাবাদে ফিরে আসার হুমকি দেন তিনি।

এর আগে বৃহস্পতিবার ভোরের দিকে তিনি ও তার গাড়িবহর ইসলামাবাদে পৌঁছে। লংমার্চকে কেন্দ্র করে সরকার দেশটির রাজধানীতে বেশকিছু জায়গায় সেনা মোতায়েনের অনুমোদন দেয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহ একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে বলেন, সরকার সংবিধানের ২৪৫ অনুচ্ছেদের অধীনে রেড জোনে সেনাবাহিনী মোতায়েনের অনুমোদন দিয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, সেনাবাহিনী সুপ্রিম কোর্ট, সংসদ ভবন, প্রধানমন্ত্রী ভবন, প্রেসিডেন্সি, পাকিস্তান সেক্রেটারিয়েট এবং কূটনৈতিক ছিটমহল রক্ষায় কাজ করবে।