advertisement
আপনি পড়ছেন

সদ্য সমাপ্ত ইউরোপিয়ান সামিট বা ইইউ শীর্ষ সম্মেলনে জোটটির সদস্য প্রার্থীর মর্যাদা লাভ করেছে ইউক্রেন ও মলদোভা। তাদের ইইউতে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার চেষ্টায় ক্ষেপেছে রাশিয়া। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, ইউরোপীয় ইউনিয়নের নেতারা যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তাতে দেশ দুটির জন্য নেতিবাচক পরিণতি বয়ে আনবে। টিআরটি ওয়ার্ল্ড।

maria zakharova russiaমারিয়া জাখারোভা

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা এক বিবৃতিতে বলেন, ইউক্রেন ও মলদোভাকে প্রার্থী দেশের মর্যাদা দেওয়ার সিদ্ধান্তের সাথে ইউরোপীয় ইউনিয়ন নিশ্চিত করল, তারা কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর সাথে ভূ-রাজনৈতিক যুদ্ধ শুরু করেছে। তারা এই ধরনের পদক্ষেপের নেতিবাচক পরিণতির কথা ভাবছে না। উল্লেখ্য, রাশিয়া ও মলদোভা কমনওয়েলথ ইন্ডিপেনডেন্ট স্টেটসের (সিআইএস) সদস্য।

বিস্ফোরক পরিষ্কার করতে ১০ বছর সময় লাগবে: রাশিয়ার সাথে যুদ্ধ শেষ হয়ে গেলেও বিপদ কাটতে সময় লাগবে। ইউক্রেনের একজন জরুরি পরিষেবা কর্মকর্তা বলছেন, ইউক্রেনের ভূমি ও আঞ্চলিক সমুদ্র থেকে সমস্ত মাইন এবং বিস্ফোরক পরিষ্কার করতে কমপক্ষে এক দশক সময় লাগবে।

তিনি জানান, ইউক্রেন এখন পর্যন্ত মাত্র ৬২০ বর্গকিলোমিটার ভূমি পরিষ্কার করতে সক্ষম হয়েছে। এই অল্প জায়াগা হাজার হাজার বিস্ফোরক ডিভাইসে ভর্তি ছিল। যার মধ্যে ২০০০টি বোমা রয়েছে, যা আকাশ থেকে ফেলা হয়েছে। প্রায় ৩ লাখ বর্গকিলোমিটার এলাকা এখনও ‘দূষিত’ হিসেবে দেখা যাচ্ছে। এই দুষিত ও ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাটি ইউক্রেনের ভূখণ্ডের আয়তনের প্রায় অর্ধেক এবং ইতালির সমান।

সেভেরোদোনেৎস্ককে থেকে সরছে ইউক্রেনীয় বাহিনী: কয়েক সপ্তাহের ভয়ানক লড়াইয়ের পর ইউক্রেনীয় বাহিনী পূর্বাঞ্চলের অবরুদ্ধ শহর সেভেরোদোনেৎস্ক থেকে পিছু হটতে শুরু করেছে। একজন আঞ্চলিক কর্মকর্তা এ তথ্য জানিয়েছেন।

অবিরাম রাশিয়ান বোমাবর্ষণের পরে শিল্প শহরটি ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। শহরটির জনসংখ্যা প্রায় ১০ লাখ। হামলায় ১০ হাজার মানুষ তাদের বাড়িঘর ছেড়ে চলে গেছে।