advertisement
আপনি দেখছেন

সালমান খানের ছবি মানেই হলভর্তি দর্শক আর শোয়ের পর শো। গত কয়েক বছর ধরে চলে আসছে এমনই। সালমানের ছবি মানেই হিট— ভারতে এই যেনো উঠছিলো রীতি। কিন্তু সর্বশেষ ছবি ‘টিউবলাইট’ দিয়ে সেই রীতিতে কিছুটা হলেও ছেদ পড়লো। এই ছবি নাকি আশানুরূপ ফল করতে পারেনি। ফলে ছবিটি বিপণন করা প্রতিষ্ঠানগুলোকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

salman khan in the movie tubelight

প্রতি ঈদেই মুক্তি পায় সালমানের নতুন নতুন ছবি। এবার নিজের ছোট ভাই সোহেল খান ও তার নিজের দারুণ অভিনয় ও গল্প নিয়ে তিনি রিলিজ করেন ‘টিউবলাইট’ ছবিটি।

মুক্তির কয়েক দিনের মধ্যেই ছবিটি একশ কোটি রুপি আয় করে। এতেই ভারতের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি একশ কোটি রুপি আয়ের সিনেমার অভিনেতায় পরিণত হন সালমান খান। কিন্তু ‘টিউবলাইটের’ পরিণতি এর চেয়ে ভালো হবে বলেই আশা করছিলেন সালমান খান। কিন্তু আদতে তা হয়নি।

প্রত্যাশিত ব্যবসা না হলেও ‘টিউবলাইটের’ আলো যে একেবারে ছড়ায়নি, তা কিন্তু নয়। তারপরও সালমান খানের মন কিছুটা হলেও খারাপ।

তবে তিনি মন খারাপ নিয়ে বসে থাকছেন না। বরং অন্যদের মন ভালো করার উদ্যোগ নিয়েছেন। যে সব বিপণনকারী প্রতিষ্ঠান সালমানের ছবি বিক্রি করে মোটা অঙ্কের আয়ের স্বপ্ন দেখেছিলেন, সালমান খান তাদেরকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

একশ কোটি রুপি আয় করা ১০টি ছবিতে অভিনয় করা এই নায়কের এমন সিদ্ধান্ত দারুণ আলোচনার জন্ম দিয়েছে। অনেকে তাকে সত্যিকারের ‘হিউম্যান বিয়িং’ বলছেন। কেউ বা তাকে ‘বিন্দাস খান’ বলে অভিহিত করেছেন।