advertisement
আপনি দেখছেন

বাংলাদেশ সচিবালয়ের ভবন-১ ভূমিকম্পের ঝুঁকিতে থাকায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অন্য আরেকটি ভবনে সরিয়ে নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম। সোমবার মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এমনটাই জানান তিনি।

secretary office

শফিউল আলম বলেন, ‘সচিবালয়ের ভবনগুলোর ভূমিকম্প ও অন্যান্য ঝুঁকির বিষয়ে আলোচনা করতে আমরা সংশ্লিষ্টদের সাথে বৈঠক করব।’

তিনি জানান, সচিবালয়ের ভেতরে একটি ২০তলা ভবন নির্মাণের নকশা চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। ভবনটিকে সব ধরনের ঝুঁকি থেকে মুক্ত রাখতে তাতে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা থাকবে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, গত বছর দেশে যত অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে তার ৩৯ শতাংশের সূত্রপাত হয়েছে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে। তবে সচিবালয়ের ভেতরের সব ভবনে প্রয়োজনীয় সার্কিট ব্রেকার রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, গণপূর্ত অধিদপ্তরের তৈরি করা সচিবালয়ের ভবনগুলোতে অগ্নিকাণ্ডের ঝুঁকি নেই।

উল্লেখ্য, গত ২৮ মার্চ রাজধানীর বনানীর এফ আর টাওয়ারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ২৬ জনের প্রাণহানির পর নড়েচড়ে বসেছে সরকারের বিভিন্ন বিভাগ। তারই অংশ হিসেবে সোমবার সচিবালয়ের ঝুঁকির বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়। 

প্রসঙ্গত, এর আগে গত ২০ ফেব্রুয়ারি রাতে পুরান ঢাকার চুড়িহাট্টায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৭১ জন প্রাণ হারান। সেই অগ্নিকাণ্ডের রেশ কাটতে না কাটতেই বনানীর ঘটনা ঘটে।

নগরবিদরা বলছেন, বহুতল ভবন তৈরির সময় নির্মাণ বিধি লঙ্ঘন এবং নিরাপত্তার বিষয়গুলো উপেক্ষা করার কারণে ঢাকা ও আশপাশের এলাকায় প্রায় এক কোটি ৮০ লাখ মানুষ অগ্নিকাণ্ড ও ভূমিকম্পের ঝুঁকিতে রয়েছেন।