advertisement
আপনি দেখছেন

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধে ফাঁসি কার্যকর হওয়া যুদ্ধাপরাধী কাদের মোল্লাকে ‘শহীদ’ উল্লেখ করে ‘দৈনিক সংগ্রাম’ প্রতিবেদন প্রকাশ করায় শুক্রবার পত্রিকাটির কার্যালয় ভাঙচুর করেছে মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চের একদল নেতাকর্মী। পরে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে পত্রিকাটির সম্পাদক আবুল আসাদকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আজ আদালতে নেয়া হয়।

sangram editor court

গতকাল বিকেল ৫টার দিকে মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল ও সেক্রেটারি আল মামুনের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা দৈনিক সংগ্রাম পত্রিকার কার্যালয়ের সামনে জড়ো হয়ে প্রায় আধাঘন্টা ভাঙচুর চালায়। তারা কার্যালয়ে ঢুকে বেশ কয়েকটি টেলিভিশন, কম্পিউটার ও আসবাবপত্র ভাঙচুর করে।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দৈনিক সংগ্রামের সম্পাদক আবুল আসাদকে হাতিরঝিল থানায় নিয়ে যায়।

তেজগাঁও পুলিশের উপ-কমিশনার মো. আনিসুর রহমান জানান, ‘পরে ৩৬ নম্বর ওয়ার্ডের মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আফজাল হোসেনের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।’

প্রসঙ্গত, একাত্তরে যুদ্ধাপরাধের দায়ে জামায়াতে ইসলামীর সহকারী মহাসচিব কাদের মোল্লাকে ২০১৩ সালের ১২ ডিসেম্বর ফাঁসি কার্যকর করা হয়।

গত বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) জামায়াতে ইসলামের মুখপাত্র হিসেবে পরিচিত ‘দৈনিক সংগ্রামে’ প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে কাদের মোল্লাকে ‘শহীদ’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়। প্রতিবেদনটির শিরোনাম ছিল ‘শহীদ আবদুল কাদের মোল্লার ৬ষ্ঠ শাহাদাত বার্ষিকী আজ।’ ইউএনবি।