advertisement
আপনি দেখছেন

বাংলা নববর্ষ পালন মানেই যেন দিনের প্রথম প্রহরে পান্তা-ইলিশ দিয়ে ভুড়ি ভোজের কাজটি সেরে নেয়া। সেই সঙ্গে বর্ণিল আয়োজন তো আছেই। এবার বাংলা নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে প্রথমবারের মতো বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে মঙ্গল শোভাযাত্রা ও দিনব্যাপী বৈশাখী মেলার আয়োজন করতে যাচ্ছে। কিন্তু অবাক করা বিষয় হচ্ছে বর্ষবরণের এই উৎসবে পান্তা-ইলিশ খাওয়াকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

panta ilish

খোদ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকেই নাকি এমন নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এই নিষেধাজ্ঞার পিছনে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইমামুল হকের ভূমিকা রয়েছে।

গতকাল সাংবাদিকদের সামনে নববর্ষ উদযাপনে পান্তা ইলিশ নিষেধাজ্ঞার যৌক্তিকতা তুলে ধরে উপচার্য বলেন, 'ইদানিং বাংলা নববর্ষ উদযাপনে যে পান্তআ-ইলিশ সংস্কৃতি চালু হয়েছে তার সাথে বাংলা বর্ষবরণের সঙ্গে আদৌ কোনো সম্পর্ক নেই। তাই আমরা এটিকে সমর্থন দিচ্ছি না। পহেলা বৈশাখ পালন উপলক্ষে ইলিশ খাওয়ার এই রীতির বিরুদ্ধে দেশজুড়ে গণসচেতনতা তৈরি করার চেষ্টা করছি আমরা।'

তবে পান্তা-ইলিশে নিষেধাজ্ঞা জারি করলেও নতুন বছরকে বরণ করতে সকালে মঙ্গল শোভাযাত্রার পর ক্যাম্পাস মাঠে দিনব্যাপী মেলা আয়োজন করার পক্ষে মত দিয়েছেন তিনি। কারণে এটিকে উপচার্য বাংলা সংস্কৃতির অন্যতম অংশ বলেই মনে করেন। তবে মনে রাখতে হবে সংস্কৃতির নামে বাড়াবাড়িকে মোটেও প্রশ্রয় দেয়ার পক্ষ নন বলেও জানিয়েছেন উপাচার্য ড. ইমামুল হক।

মতবিনিময় সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. একেএম মাহবুব হাসান, রেজিস্ট্রার মনিরুল ইসলাম, প্রক্টর মো. সফিউল আলম, প্রকল্প পরিচালক হুমায়ুন কবির, নির্বাহী প্রকৌশলী মুর্শিদ আবেদীন প্রমুখ।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন 

ওসমান ফারুক: প্রধানমন্ত্রীকে হেলিকপ্টার ব্যবহার করার অনুরোধ জানাই

বেশি মৃত্যুদণ্ড দেয়া দেশের তালিকায় বাংলাদেশ তৃতীয়

বাংলাদেশি অভিবাসীদের ফেরত পাঠাবে তুরস্ক

আবারও গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রস্তাব

sheikh mujib 2020