advertisement
আপনি দেখছেন

উন্নয়নশীল ৮টি মুসলিম দেশের জোট ডি-৮-এর দশম শীর্ষ সম্মেলন শুরু হয়েছে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায়। এর সমাপনীর দিন আজ বৃহস্পতিবার ভার্চুয়াল এই সম্মেলনে সভাপতির বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

shekh hasina d 8সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

এদিন সংস্থাটির সদস্য দেশগুলোকে ৪টি বিষয়ে সহযোগিতার তাগিদ দেন সম্মেলনে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেয়া শেখ হাসিনা। সেগুলো হলো- দক্ষতার উন্নয়ন ঘটিয়ে তরুণদের সক্ষমতা কাজে লাগানো; তথ্য-প্রযুক্তির আইনি ও প্রাতিষ্ঠানিকসহ পূর্ণ সক্ষমতার ব্যবহার; অবকাঠামোগত কাঠামো তৈরি; বাণিজ্য ও বিনিয়োগের সহজীকরণে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন।

জলবায়ু ইস্যুতে ডি-৮ ভুক্ত দেশগুলোর মধ্যকার সহযোগিতা বাড়ানোর অত্যাবশ্যকতা সামনে আনেন প্রধানমন্ত্রী। ঘন ঘন প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও করোনার মধ্যেও বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের কথা তুলে ধরেন তিনি।

দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বাড়াতে ব্যবসায়ীদের ভিসা সহজ করার ওপর জোর দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, সম্ভাবনার তথ্য সরবরাহের পাশপাশি বাণিজ্য ও বিনিয়োগে চুক্তির সম্ভাব্যতা যাচাই করা যেতে পারে।

d 8 10th summit dhaka innerদশম ডি-৮ শীর্ষ সম্মেলনে সদস্য দেশগুলো নেতারা

এ ছাড়া রোহিঙ্গা সংকটের সমাধানে মিয়ানমারের ওপর চাপ অব্যাহত রাখা এবং করোনা মহামারি মোকাবেলাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা বাড়ানোর কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

‘পরিবর্তনশীল বিশ্বে অংশীদারিত্ব: যুবশক্তি ও প্রযুক্তির প্রস্তুতি’ শীর্ষক চার দিনব্যাপী এই ভার্চুয়াল শীর্ষ সম্মেলনের আয়োজক বাংলাদেশ। আগামী দুই বছর জোটের চেয়ার দায়িত্ব পালন করবে বাংলাদেশ। এই সম্মেলনে দায়িত্ব হস্তান্তর করছে বর্তমান চেয়ার তুরস্ক।

ডি-৮ ভুক্ত দেশগুলো হলো- বাংলাদেশ, ইরান, মালয়েশিয়া, পাকিস্তান, তুরস্ক, নাইজেরিয়া, মিশর ও ইন্দোনেশিয়া। সম্মেলনে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানসহ সদস্য দেশগুলোর সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানরা অংশ নেন।