advertisement
আপনি দেখছেন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেয়ার পর পরই ‘গণতন্ত্র সম্মেলন’ আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছিলেন জো বাইডেন। সে অনুযায়ী আগামী ৯-১০ ডিসেম্বর ‘সামিট ফর ডেমোক্রেসি’ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, যাতে আমন্ত্রিত দেশগুলোর তালিকা মঙ্গলবার প্রকাশ করা হয়। এতে বাংলাদেশের নাম নেই বলে জানা গেছে।

abdul momen bd foreign minister 1এ কে আব্দুল মোমেন, ফাইল ছবি

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আজ বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, দুই পর্বের সম্মেলনের প্রথম পর্বে গণতন্ত্রের দিক থেকে দুর্বল দেশগুলোকে হয়তো ডাক দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বাংলাদেশকে বাদ দিয়েছে বলছি না, হয়তো দ্বিতীয় পর্বে ডাকবে। এ ক্ষেত্রে সরকারের কিছু করার নেই, এটা তাদের দায়দায়িত্ব।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘ক্লাইমেট জাস্টিস অ্যান্ড পিস ইন দ্যা কনটেক্সট অব বাংলাদেশ’ সেমিনার শেষে তিনি বলেন, গণতন্ত্র সম্মেলন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রেই প্রশ্ন উঠেছে। দেশটি গণতন্ত্র নিয়ে ঝামেলায় পড়েছে। আড়াই শ বছরের পুরোনো গণতন্ত্রের দেশের কী অবস্থা, তা দেখেছেন কয়েকদিন আগে।

abdul momen duঅনুষ্ঠানে আব্দুল মোমেন

বাংলাদেশে ‘অত্যন্ত স্বচ্ছ’ গণতন্ত্র রয়েছে দাবি করে আব্দুল মোমেন বলেন, কয়েক বছর ধরে গণতন্ত্র স্থিতিশীল রয়েছে। ‘ফ্রি অ্যান্ড ফেয়ার’ ভোটের মাধ্যমে জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হচ্ছে, মানুষ ভোট দিচ্ছে। যে কেউ নির্বাচনে দাঁড়ানোর সুযোগ পাচ্ছে। প্রতিবেশী মিয়ানমারে অনেক মানুষকে ভোটই দিতে দেয়া হয়নি, আফগানিস্তানেও একই অবস্থা।

সম্মেলনের তালিকায় বাংলাদেশের নাম না থাকায় সাংবাদিকরা কেন ‘দুশ্চিন্তায়’, প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, কারো উপদেশ অনুযায়ী দেশে গণতন্ত্র হবে না। এখানে লোকদের ওপর গণতন্ত্র, অন্যের পরামর্শে কাজ করি না আমরা। অনুষ্ঠানে গিয়ে বকবক করলেই গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হয় না।