advertisement
আপনি দেখছেন

সবাই যখন হাত দিয়ে পরীক্ষা দিচ্ছেন, তখন পা দিয়ে লিখে চলেছেন সুরাইয়া জাহান। হাত অকেজো থাকায় আজ শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় দেখা মিললো এমন দৃশ্যের। এর মধ্য দিয়ে শেরপুরের মেয়ে সুরাইয়ার অদম্য ইচ্ছা, সীমাহীন প্রাণশক্তি আর বুকভরা স্বপ্ন সবার সামনে আসলো।

suraiya jahanপায়ে লিখে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা সুরাইয়ার

জানা গেছে, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে শেরপুর থেকে মা মুর্শিদা ছফির সঙ্গে এসেছেন সুরাইয়া। মুখের ভাষা অস্পষ্ট হওয়ায় চোখের ইশারায় মনের ভাব প্রকাশ করে থাকেন তিনি। শারীরিক প্রতিবন্ধী মেয়ের জীবনযুদ্ধে পাশে থেকে সমর্থন জুগিয়ে যাচ্ছে পরিবার।

এ বিষয়ে মুর্শিদা ছফির বলছেন, সংসারের বড় মেয়ে সুরাইয়া জন্মগতভাবেই প্রতিবন্ধী। সে জন্য তাকে আজকের এই অবস্থানে নিয়ে আসার পেছনে দীর্ঘ সংগ্রাম করতে হয়েছে তাদের। আমৃত্যু তার এগিয়ে যাওয়ার সঙ্গী হয়ে থাকব আমি।

suraiya jahan 1মায়ের সঙ্গে সুরাইয়া

সুরাইয়া ঢাবির ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবে আশা করে তিনি আরো বলেন, তারা স্বপ্ন দেখেন মেয়ে একদিন বড় অফিসার হবে। নিজের সীমাবদ্ধতাকে জয় করে অন্যদের জন্য অনুপ্রেরণার দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করবে। সেই আশায় বুক বাঁধছেন তারা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, একজন শিক্ষকের মেয়ে সুরাইয়া এসএসসিতে জিপিএ ৪.১১ ও এইচএসসিতে ৪.০০ পেয়ে পাশ করেছেন। এখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করে সরকারি চাকুরিতে যোগ দিতে চান তিনি।

ঢাবির ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা আগামী ১ অক্টোবর থেকে দেশের ৮টি বিভাগীয় শহরে শুরু হয়েছে। এবারই প্রথম বিভাগীয় শহরের প্রধান বিশ্ববিদ্যালয়ে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সূচি অনুযায়ী, দ্বিতীয় দিন আজ ‘খ’ ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।