advertisement
আপনি দেখছেন

নভেল করোনাভাইরাসের সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ যুক্তরাষ্ট্রে। ইতোমধ্যে প্রায় ১০ লাখ মানুষ আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন দেশটিতে। স্বাভাবিকভাবেই সেখানে বাস করা প্রবাসীরাও আক্রান্ত হচ্ছেন, মৃত্যুবরণ করছেন। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের সংক্রমণে এখন পর্যন্ত সেখানে মারা গেছেন ২০০ শ’র বেশি বাংলাদেশি। আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৫ হাজার।

200 bangladeshi

প্রায় প্রতিদিনই কোনো না কোনো বাংলাদেশি মারা যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রে। গতকাল রোববার মারা গেছেন ৩ জন। নিউইয়র্কে ২ জন পুরুষ এবং ভার্জিনিয়ায় ১ জন নারী। তাতে মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০২-এ। এর মধ্যে প্রায় ১৮৫ জন বাংলাদেশি মারা গেছেন নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যে। যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ এবং মৃত এই রাজ্যেই।

গতকাল রোববার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে নিউইয়র্কে যিনি মারা গেছেন তিনি জাসাস কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক নায়ক হেলাল খানের বাবা নূর খান। লং আইল্যান্ডের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। এর মাত্র দু’দিন আগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে নিউইয়র্কেই মারা গেছেন হেলাল খানের ছোট ভাই মাহবুব খানের শ্বশুর।

ভার্জিনিয়ায় মারা যাওয়া নারীর নাম খাদিজা বেগম। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর তিনি ভার্জিনিয়ার স্প্রিং ফিল্ড সিটির নিজ বাসায় আইসোলেশনে ছিলেন। গতকাল সেখানেই মারা গেলেন। এছাড়া একইদিনে নিউইয়র্কে মারা যাওয়া মোহাম্মদ আহসান (৪৬) ছিলেন নিউইয়র্ক পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের ম্যানেজার। মৃত্যুর আগে তিনি আইস্টাইন হাসপাতালে দুই সপ্তাহ চিকিৎসাধীন ছিলেন।

sheikh mujib 2020