advertisement
আপনি দেখছেন

করোনা ভাইরাসের ভয়ে তটস্থ বিশ্বের মানুষ। প্রতিদিনই নতুন নতুন দেশ আক্রান্ত হচ্ছে নতুবা আক্রান্তের ঝুঁকিতে পড়ছে। এমন অবস্থায় করোনা ভাইরাস থেকে বেঁচে থাকতে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার জোর পরামর্শ দেয়া হয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে শুরু করে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে। এতে করে বেশ ফলও মিলেছে। মানুষ সচেতন হচ্ছে। এমনকি বাংলাদেশেরও উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মানুষ মাস্ক পড়ছেন। 

corona virus

এটি সত্যিই প্রশংসনীয় এবং আশা জাগানোর মতো খবর।

বিশ্বখ্যাত চিকিৎসকরা করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে নানা সতর্কবাণী দিচ্ছেন। এর মধ্যে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকাটাকে খুব গুরুত্ব দিয়ে বলছেন তারা। তবে চিকিৎসকরা এ কথাও বলেছেন, শুধু নিজেকে পরিষ্কার রাখলেই হবে না, প্রতিনিয়ত যেসব জিনিসপত্র আমারা ব্যবহার করি, সেগুলোও পরিষ্কার রাখা অসম্ভব রকম জরুরি।

সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মরণঘাতী করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকতে চাইলে নিত্য ব্যবহার্য বস্তু সামগ্রী পরিষ্কার রাখা আবশ্যক। বিশেষ করে, ফোন পরিষ্কার রাখা জরুরি। সন্দেহ নেই, প্রযুক্তির এই সময়ে মোবাইলই আমাদের সবচেয়ে বেশি হাতে নেয়া হয়। যদি মোবাইল পরিচ্ছন্ন রাখার ব্যাপারে অবহেলা করা হয়, তাহলে করোনাভাইরাসের আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যাবে, এতে কোনো সন্দেহ নেই।

সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্যমন্ত্রাণালয়ের একাধিক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক বলেছেন, করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকতে মাস্কের চেয়ে বেশি জরুরি মোবাইল ফোন পরিষ্কার রাখা। চিকিৎসকরা বলেন, করোনাভাইরাস বাতাসে ছড়ায় কি না তা এখনো পুরোপুরিভাবে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে এটি যে অপরিচ্ছন্নতা থেকে ছড়ায় এটা আমরা নিশ্চিত। আর আমাদের সবচেয়ে বেশি অপরিচ্ছন্ন থাকে মোবাইল। মোবাইল ধরেই আমরা হাত না ধুয়ে খাচ্ছি কিংবা মুখে হাত ঢুকিয়ে ফেলছি। তাই মোবাইল পরিচ্ছন্ন রাখার ব্যাপারে বেশ গুরুত্ব দিতে হবে।

ম্যাসাচুচেটস অব ইন্সটিটিউটের গবেষকরা বলেন, মানুষ যখন মোবাইল ফোনে কথা বলে তখন ফোন নাক, কান এবং চোখের এমনকি মুখেরও খুব কাছাকাছি থাকে। এতে করে ফোনে থাকা জীবাণু সহজেই শরীরে ঢুকে যেতে পারে।

টয়লেটে ফোন নিয়ে যাওয়ার অভ্যাস যাদের আছে, তাদেরকেও সতর্ক হতে বলেছেন ম্যাসাচুচেটস অব ইন্সটিটিউটের গবেষকরা।

sheikh mujib 2020