advertisement
আপনি পড়ছেন

মুন্সিগঞ্জে পুলিশের সাথে সংঘর্ষে নিহত যুবদল নেতা শহীদুল ইসলাম শাওনের জানাজা রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে অংশ নেন দলীয় নেতাকর্মীসহ হাজার হাজার মানুষ।

shawn bhuiyanশহীদুল ইসলাম শাওন

শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) মাগরিবের নামাজের পর এই জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। মাগরিবের নামাজের কিছু আগে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গ থেকে যুবদল নেতা শাওনের মরদেহ নয়াপল্টনে নিয়ে আসা হয়।

জানাজায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ভাইস চেয়ারম্যান শাহজাহান ওমর বীর উত্তম, আব্দুল্লাহ আল নোমান, বিএনপি নেতা হাবিব উন নবী সোহেল, ফজলুল হক মিলন, আবদুস সালাম আজাদ, কামরুজ্জামান রতন, শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, যুব দলের সুলতান সালাউদ্দীন টুকু, মোনায়েম মুন্না, মামুন হাসানসহ কয়েক হাজার নেতাকর্মী অংশ নেন।

২১ সেপ্টেম্বর মুন্সিগঞ্জের মুক্তারপুরে বিএনপির কর্মসূচি চলাকালে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এতে শাওন গুরুতর আহত হন। রাতেই তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাত ৯টার দিকে শাওন মারা যান। তিনি মুন্সিগঞ্জের মীরকাদিম পৌর যুবদলের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন।

এদিকে, শাওনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি এক শোক বার্তায় বলেন, যুবদল নেতা শহীদুল ইসলাম শাওনের মৃত্যুতে শোক প্রকাশের ভাষা হারিয়ে ফেলেছি। তার মৃত্যু যে ইতিহাস রচনা করল তা দলের নেতাকর্মীদেরকে সরকারের ভয়াবহ দুঃশাসনের বিরুদ্ধে আরও বলীয়ান করবে।