আপনি পড়ছেন

ইরানের আলোচিত ওই বিমানটি শেষ পর্যন্ত কোনো ধরনের সমস্যা ছাড়াই চীনের গন্তব্যে নিরাপদে অবতরণ করেছে। যান্ত্রিক গোলযোগের কারণে বিমানটি ভারতের দিল্লিতে নামতে চেয়েছিল। কিন্তু বোমার আতঙ্কে বিমানটিকে দিল্লিতে নামতে দেওয়া হয়নি। বরং বিমানটি যেন কোনোভাবেই দিল্লিতে নামতে না পারে সে জন্য দুটি যুদ্ধবিমানকে এই বিমানের পাহারায় পাঠানো হয়েছিল। খবর মিডলইস্টমনিটর।

iran plane arrives safely in chinaমাহান এয়ারের একটি বিমান

ইরানের আধা-সরকারি আইএসএনএ সোমবার (৩ অক্টোবর) জানায়, মাহান এয়ারের একটি ফ্লাইট তেহরান থেকে চীনের গুয়াংজুর গন্তব্যে যাচ্ছিল। সকাল নয়টার দিকে কিছু যান্ত্রিক গোলযোগের কারণে বিমানটি ভারতের রাজধানী দিল্লিতে অবতরণ করার অনুমতি চায়। ওই সময়েই অর্থাৎ সকাল সোয়া নয়টার দিকে ভারতের পুলিশ একটি ফোন পায়, যাতে বলা হয়েছিল, ইরানের ফ্লাইটতে বোমা রয়েছে। পুলিশ খবরটি এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলকে জানায়। তারা বিষয়টি অবহিত করে ভারতের বিমানবাহিনীকে।

বিমানবাহিনী তৎক্ষণাৎ পাঞ্জাব ও জয়পুর থেকে দুটি যুদ্ধবিমান পাঠায় ওই বিমানটিকে পাহারা দিতে যাতে মাহান এয়ারের ওই ফ্লাইটটি দিল্লিতে অবতরণ করতে না পারে। নিরাপদ দূরত্বে যুদ্ধবিমান দুটি ইরানের বিমানটিকে ফলো করছিল। ভারতের এয়ার ট্রাফিকের পক্ষ থেকে তেহরানের এ ফ্লাইটটিকে উত্তর-পশ্চিম ভারতের দুটি বিমানবন্দরে অবতরণের প্রস্তাব দেয়। কিন্তু ইরানের ওই বিমান তাদের সে প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে চীনের দিকে এগিয়ে যায়।

মাহান এয়ার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, আমাদের এয়ারবাস-৩৪০ যাত্রীবাহী বিমানটি তেহরান থেকে চীনের গুয়াংজুতে যাচ্ছিল। যান্ত্রিক গোলযোগের কারণে বিমানটি দিল্লিতে অবতরণ করতে চাইলেও সে অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করা হয়। পরে কর্তৃপক্ষের পরামর্শে পাইলটরা বিমানটিকে চীনের গুয়াংজুতে নিয়ে যান। পরে সেখানে তল্লাশি চালিয়ে কোনো বোমা পাওয়া যায়নি।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর