আপনি পড়ছেন

২০০৭ সালে জুনে আফগানস্তানের উরুজগানে একটি আবাসিক কমপ্লেক্সে ডাচ সৈন্যরা যে হামলা চালিয়েছিল সেটিকে বে-আইনি বলে রায় দিয়েছেন একটি ডাচ আদালত। গত বুধবার দেওয়া এক রায়ে আদালত আরো বলেছেন, বে-আইনি ওই হামলার ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ দিতে হবে নেদারল্যান্ডসকে। খবর আলজাজিরা ও রয়টার্স।

dutch bombing in afghanistanআফগানিস্তানে ডাচ হামলা

উরুজগানের চোরা উপত্যকায় চালানো ওই হামলায় কয়েক ডজন বেসামরিক লোক নিহত হয়েছিল। সে হামলাটি বৈধ ছিল কি না সে প্রশ্ন তুলে এক প্রবীণ সেনা সদস্য এক প্রতিবেদন দেওয়ার পর বিষয়টি নজরে আনে ডাচ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। দুই বছর আগে তারা বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য প্রসিকিউটরদের নির্দেশ দেয়।

হেগের একটি জেলা আদালত এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ওই বাড়িতে হামলার জন্য নেদারল্যান্ডস দায়ী ছিল। কারণ তাদের এ বিষয়টি জানা ছিল যে এই বাড়িগুলোতে বেসামরিক নাগরিকদের বসবাস ছিল। তাদের কাছে তথ্য ছিল তালেবান সদস্যরা সামরিক উদ্দেশ্যে বাড়িগুলো ব্যবহার করেছে। সে দিক থেকে তাদের হামলা বে-আইনি ছিল না। কিন্তু ডাচ বাহিনী কিসের ভিত্তিতে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছিল যে, এই বাড়িগুলো তালেবান ব্যবহার করছে, তা পরিষ্কার নয়, তাই বোমা হামলা বে-আইনি।

dutch army in afghanistanআফগানিস্তানে ডাচ সেনাসদস্য, ফাইল ছবি

আদালত আরও বলেছেন, এ হামলায় নিহত ও ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। তবে ক্ষতিপূরণের পরিমাণ কী হবে তা পরবর্তী তারিখে নির্ধারণ করা হবে।

উল্লেখ্য, ২০০৭ সালের ১৭ জুন রাতে ডাচ এফ-১৬ যুদ্ধবিমানগুলো মধ্য আফগান প্রদেশ উরুজগানে ২৮টি গাইডেড বোমা ফেলে। তার মধ্যে ১৮টি কৌশলগত শহর চোরার কাছে প্রাচীর ঘেরা কম্পাউন্ডে পড়ে। ওই হামলায় প্রায় ২০ জন বেসামরিক লোক মারা যায়।

ডাচ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় যুক্তি দিয়েছিল, সামরিক বাহিনী যখন কম্পাউন্ডে আঘাত করেছিল তখন ভবনগুলো তালেবান যোদ্ধারা ব্যবহার করছিল। বুধবার আদালত অন্যথা খুঁজে পেয়েছেন। বিচারকরা বলেছেন যে বোমা হামলার আগে অন্তত ১৫ ঘন্টা কম্পাউন্ডের আশেপাশে কোনো গুলি চালানো হয়নি। ফলে তাদের এ দাবি পরিষ্কার নয়।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর