আপনি পড়ছেন

তুরস্ক সফর করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। সফরে গতকাল শুক্রবার তিনি ও দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ান এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন। সেখানে এরদোয়ান বলেন, পাকিস্তান ও আজারবাইজানের সাথে ত্রিপক্ষীয় সহযোগিতায় জোর দিচ্ছে আঙ্কারা। অপরদিকে চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোরে তুরস্কের বড় বিনিয়োগ কামনা করেন শাহবাজ শরিফ। টিআরটি ওয়ার্ল্ডের খবর।

shahbaz sharif erdoganশাহবাজ শরিফ-রিসেপ তায়েপ এরদোয়ান

তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, পাকিস্তান ও আজারবাইজানের সাথে আঙ্কারা দ্রুত ত্রিপক্ষীয় সহযোগিতামূলক কার্যক্রমের আরও উন্নয়ন ঘটাতে চায়। বিশেষ করে পাকিস্তানের সাথে দক্ষিণ এশিয়ার শান্তি ও স্থিতিশীলতার লক্ষ্যে তুরস্কের অনেক সফল যৌথ সহযোগিতা প্রকল্প রয়েছে। দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্যের পরিমাণ এক বিলিয়ন ডলারে পৌঁছেছে। তা ৫ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করার রাজনৈতিক সংকল্প রয়েছে বলে তিনি জানান।

আফগানিস্তানের প্রসঙ্গ টেনে এরদোয়ান বলেন, আফগানিস্তানে শান্তি ও স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠা আঙ্কারা ও ইসলামাবাদের মানবিক দায়িত্ব। তাদের যেকোনো হুমকি ও ঝুঁকি মোকাবেলায় আমরা একসঙ্গে কাজ করতে চাই। আফগান জনগণের মানবিক সংকট দূর করার ক্ষেত্রেও আমাদের উভয় দেশের কর্তব্য রয়েছে।

ইসলামাবাদের সন্ত্রাসবিরোধী প্রচেষ্টার জন্য আঙ্কারার সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করে এরদোয়ান বলেন, তুরস্ক ও পাকিস্তানের সংহতি ও পারস্পরিক সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। পাকিস্তানের আনন্দ-বেদনাকে আঙ্কারা সবসময় ভাগাভাগি করে নিতে প্রস্তুত। পাকিস্তানের সাফল্যকে তুরস্কের সাফল্য হিসেবে আমরা মনে করি।

সফরে শাহবাজ শরিফ এরদোয়ানকে চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোর সম্প্রসারণে সহযোগিতার প্রস্তাব করেছেন। প্রকল্পটিতে তুরস্কের বড় বিনিয়োগ আশা করে পাকিস্তান।

শাহবাজ শরিফ বলেন, আমরা চীনা বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভের অধীনে চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোরের সুবিধা ভোগ করছি। এতে তুরস্কের সহযোগিতা থাকবে বলে আমি মনে করি। সফরে তুরস্কের সাথে সহযোগিতা চুক্তি একটি ‘বিস্ময়কর যৌথ সহযোগিতা’। এটি এই অঞ্চলে সমৃদ্ধি ও অগ্রগতি বয়ে আনবে। বিশেষ করে এই সহযোগিতার মাধ্যমে দারিদ্র ও বেকারত্ব বিমোচনে ভূমিকা রাখা সম্ভব হবে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর