আপনি পড়ছেন

ফিলিস্তিনি সমস্যার সমাধান বের করা এবং ইসরায়েলকে জবাবদিহির আওতায় আনতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের অক্ষমতা জাতিসংঘের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ব্যর্থতা। বৃহস্পতিবার ফিলিস্তিন ইস্যুতে সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে ভাষণ দেওয়ার সময় কুয়েতের প্রতিনিধি এ মন্তব্য করেন। খবর আরব নিউজ।

kuwaits permanent representative to the un tarek al bannaiতারেক আল বান্নাই

জাতিসংঘে কুয়েতের স্থায়ী প্রতিনিধি তারেক আল-বান্নাই বলেন, অবৈধ দখলদারিত্বের জন্য ইসরায়েলকে কোনো ধরনের জবাবদিহির আওতায় না এনে বা তাদের কোনো ধরনের শাস্তি না দিয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় যেন তাদের অপরাধমূলক কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার অনুমতি দিচ্ছে। যেন ইসরায়েল সব ধরনের আইনের ঊর্ধ্বে।

ফিলিস্তিনিদের ন্যায্য সমস্যা নিয়ে কাজ করতে গিয়ে জাতিসংঘের সদস্য দেশগুলো দীর্ঘদিন ধরে দ্বৈত নীতি অবলম্বন করে যাচ্ছে উল্লেখ করে আল-বান্নাই প্রশ্ন রাখেন, এ পরিস্থিতি আর কতদিন চলবে? আর কতদিন ফিলিস্তিনি জনগণকে তাদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত করে রাখা হবে? ফিলিস্তিনি জনগণের অধিকারের বিষয়টি কি আন্তর্জাতিক আইনের বাইরের কোনো বিষয়? -এ প্রশ্নও করেন তিনি।

israeli aggrationইসরায়েলি দখলাদারিত্ব চলছে

এ সময় তিনি বলেন, ফিলিস্তিনি সমস্যা সমাধানে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের অক্ষমতা এবং দখলদার ইসরায়েলি শক্তিকে জবাবদিহির মধ্যে আনতে না পারা জাতিসংঘের সবচেয়ে বড় ব্যর্থতা। বিশেষ করে নিরাপত্তা পরিষদের ক্ষেত্রে এটি একটি অপমানজনক বিষয়।

আল-বান্নাই আরও বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ইসরায়েলি দখলদার বাহিনী এই দমন-পীড়ন, অত্যাচার ও অবিচার চালিয়ে আসলেও তারা আন্তর্জাতিক কোনো বাধার সম্মুখীন হয়নি। অথচ ইসরায়েলি দখলদারিত্ব জাতিসংঘের সনদ, আন্তর্জাতিক আইন, আন্তর্জাতিক মানবিক আইন এবং মানবাধিকারের আন্তর্জাতিক আইন, ১৯৪৯ সালের জেনেভা কনভেনশন এবং অন্যান্য বৈশ্বিক চুক্তি লঙ্ঘন করে চলেছে।

জাতিসংঘে দেওয়া ওই ভাষণে আল-বান্নাই আরও বলেন, দখল হলো এমন একটি রোগ যা অব্যাহতভাবে ফিলিস্তিনি জনগণের ওপর হত্যা, যুদ্ধ, নিপীড়ন চালানোর পাশাপাশি সেখানকার পরিবার, ঘরবাড়ি ও পরিবেশ ধ্বংস করেছে।

কুয়েতি এই কূটনীতিক জানান, জাতিসংঘে পূর্ণ সদস্যপদ পাওয়ার জন্য কুয়েত সবসময় ফিলিস্তিনকে দৃঢ়ভাবে সমর্থন করে আসছে। একই সাথে তিনি যেসব দেশ ফিলিস্তিনকে রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেয় না, তাদেরকেও সার্বিক অবস্থা পর্যালোচনা করার পর ফিলিস্তিনির পক্ষে আওয়াজ তোলার আহ্বান জানান।

আল-বান্নাই এ সময় ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের দুর্ভোগ কমাতে জাতিসংঘের ইউএনআরডাব্লিউ’এর ত্রাণ কার্যক্রমে কুয়েতের পূর্ণ সমর্থনের কথা পুনর্ব্যক্ত করেন।