আপনি পড়ছেন

সামরিক ব্যয়ে নতুন লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে জাপান। আগামী ৫ বছরে দেশটি সামরিক খাতে ৪৩ ট্রিলিয়ন ইয়েন বা ৩১৮ বিলিয়ন ডলার ব্যয় করার ঘোষণা দিয়েছে। যা বর্তমান বরাদ্দের চেয়ে দেড়গুণ। প্রতিরক্ষা খাতকে কার্যকর ও শক্তিশালী করতে প্রধানমন্ত্রী কুমিও কিশিদা এই পদক্ষেপ নিচ্ছেন। যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের পর সামরিক খাতে ব্যয়কারী তৃতীয় দেশ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে চায় জাপান। খবর টিআরটি ওয়ার্ল্ড।

japanযুক্তরাষ্ট্র-চীনের সমকক্ষ হতে চায় জাপান

দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইয়াসুকাজু হামাদা বলেন, আমাকে ও অর্থমন্ত্রী শনিচি সুজুকিকেম২০২৩-২০২৭ মেয়াদে সামরিক ব্যয় ৫০ শতাংশ বাড়াতে একটি বাজেট পরিকল্পনার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী কিশিদা। জাপানের প্রতিরক্ষা যথেষ্ট শক্তিশালী করতে প্রয়োজনীয় সামরিক সরঞ্জাম সংযোজন করা হবে এবং তা দৃঢ়ভাবে সুরক্ষিত করতে পরিকল্পিতভাবে কাজ চলছে।

খবরে বলা হচ্ছে, কিশিদার সরকার বর্তমানে জাতীয় নিরাপত্তা কৌশলে জোর দিচ্ছে। মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদী প্রতিরক্ষানীতি চূড়ান্ত করতে কাজ হচ্ছে। এতে জাপানের যুদ্ধনীতি ও প্রতিরক্ষা খাতে বড় পরিবর্তন আসবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে সমালোচকরা বলছেন, জাপানের এই পদক্ষেপে দেশটির শান্তিবাদী নীতি লঙ্ঘিত হতে পারে।

জাপান সরকার বলছে, নতুন নীতিতে যেকোনো পরিস্থিতিতে হামলা করার অনুমোদন থাকবে সামরিক বাহিনীর। এই ডিসেম্বরের শেষে পরিকল্পনার তিনটি মূল প্রকল্প ও বাজেট অনুমোদন হতে পারে।

খবরে বলা হচ্ছে, গত এক দশকে জাপান ক্রমাগতভাবে প্রতিরক্ষা ও সামরিক ব্যয় বাড়িয়ে চলেছে। দেশটির লক্ষ্য আগামী ৫-১০ বছরের সামরিক বাজেট দ্বিগুণ করে জিডিপির প্রায় দুই শতাংশে উন্নীত করা। উত্তর কোরিয়ার হুমকি ও চীনের আঞ্চলিক আধিপত্য দিন দিন বেড়ে চলায় গত এক দশকে অস্বস্তিতে রয়েছে জাপান।

কিশিদা সরকার জাপানের প্রতিরক্ষা বাজেট দ্বিগুণ করে প্রায় ১০ ট্রিলিয়ন করতে চায়, এতে দেশটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের পরের অবস্থানে উন্নীত হবে। ফলে সামরিক ব্যয়ে জাপান বিশ্বের ৩ নম্বর দেশ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে।

জাপানি বিশেষজ্ঞদের এক প্রতিবেদনে গত মাসে বলা হয়, সামরিক খাতে শক্তিশালী হতে গেলে বাণিজ্যিক বন্দর ও বিমানবন্দর উন্নত করতে হবে। সামরিক বাহিনীতে ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র, ইন্টারসেপ্টর এবং অন্যান্য অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সরঞ্জাম সংযুক্ত করতে হবে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর