আপনি পড়ছেন

খাবার ভাল রাখতেই সাধারণত ফ্রিজ ব্যবহৃত হয়। ফ্রিজে ডিম রাখার প্রচলন অনেক দিনের। এটি যুক্তরাষ্ট্রে সর্বপ্রথম চালু হয়। এরপর সব দেশে ছড়িয়ে পড়ে এই প্রচলন। ভালোভাবে লক্ষ করলে দেখবেন, ফ্রিজের মধ্যে ডিমের জন্য আলাদাভাবে জায়গা করা আছে। এটা প্রমাণিত যে, ডিম বেশিদিন বাইরে রাখলে নষ্ট হয়ে যায়। অন্য দিকে, ফ্রিজে ডিম রাখলে অনেক দিন পর্যন্ত ভাল থাকে। কোনটা করা উচিত তাহলে?

egg in fridge

ডিম ফ্রিজে রাখাই উচিত। তবে এটি শুধুমাত্র খামারের দেশি ডিমের জন্য প্রযোজ্য। এর কারণ ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ। খবরে বলা হচ্ছে, খামারের দেশি ডিম বাইরে বেশি দিন ফেলে রাখলে ডিমের ভিতরে স্যালমোনেলা নামের এক ধরনের ব্যাকটেরিয়া বাসা বাঁধতে পারে। এই স্যালমোনেলা ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ ঠেকাতেই ডিম ফ্রিজে রাখা উচিত। ফ্রিজের ঠাণ্ডায় ব্যাকটেরিয়া টিকতে পারে না।

খামারের দেশি মোরগের শুক্রাণু নিষিক্ত হয়ে যখন মুরগির শরীরের ভিতরে ডিমের জন্ম দেয়, তখন থেকেই এই স্যালমোনেলা নামের ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ শুরু হয়। এই কারণেই দেশি ডিম কিনে এনে সাথে সাথে ফ্রিজে রাখা উচিত।

অন্যদিকে, পোলট্ট্রির ডিমের ক্ষেত্রে স্যালমোনেলা নামের ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের আশঙ্কা নেই। কারণ উৎপাদন বাড়াতে পোলট্ট্রিতে কৃত্রিম পদ্ধতিতে মুরগির নিষেক ঘটানো হয়। ফলে মোরগের কোনও ভূমিকা থাকে না এখানে।

তবে কি আমরা ধরে নিব, দেশি ডিম ফ্রিজে এবং পোলট্রির ডিম বাইরে রাখা উচিত? ব্যাপারটি একটু প্যাঁচালো। ন্যাশনাল এগ কো-অর্ডিনেশন কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান সন্দীপ মেহতা এ বিষয়ে বলছেন, শীতকালে পোলট্রির ডিম সপ্তাহখানেক বাইরে রাখাই যায়। কিন্তু গরমকালে তিন বা চার দিনের বেশি রাখা যাবে না। কারণ এরপরই ডিম খারাপ হতে থাকে।

সবই জানিয়ে দেয়া হল। ডিম ফ্রিজে রাখবেন কি রাখবেন না, নাকি প্রতিদিন কিনে আনবেন, সবটাই আপনার ইচ্ছে।

আপনি আরও পড়তে পারেন

পরিস্কারের সব জাদু টুথপেস্টেই

ঘর পরিষ্কারের সামগ্রী কতোটুকু নিরাপদ

রঙ যাচাই করে কাপড় কিনুন

চিনির নানান ব্যবহার

তেলাপোকা কি খাবার নষ্ট করে?