আপনি পড়ছেন

অভ্যন্তরীণ অবস্থাকে গভীর উদ্বেগজনক আখ্যা দিয়ে জাতিসংঘ উত্তর কোরিয়াকে বিশ্ব থেকে তার ‘স্ব-আরোপিত বিচ্ছিন্নতা’ দূর করার আহ্বান জানিয়েছে। বুধবার (১২ জুন) জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার ভলকার তুর্ক এ আহ্বান জানান। খবর আনাদোলু।

kim jong un 30কিম জং উনের কথাই উত্তর কোরিয়ায় শেষ কথা

নিরাপত্তা পরিষদকে তিনি বলেন, উত্তর কোরিয়ার অনিশ্চিত মানবাধিকার পরিস্থিতি বিস্তৃত আঞ্চলিক অস্থিতিশীলতার অন্যতম প্রধান কারণ। তিনি দেশটির মানবাধিকার সংকটের ব্যাপক প্রভাবের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

ডিপিআরকেকে (উত্তর কোরিয়া) বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন একটি দেশ উল্লেখ করে তিনি মন্তব্য করেন, শ্বাসরুদ্ধকর ও বন্দীময় পরিবেশের কারণে সেখানকার মানুষেরা আশাহীন দৈনন্দিন সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে।

তুর্ক বলেন, যে কয়টি সমস্যা উত্তর কোরিয়ার পরিস্থিতি আরও ভয়ানক করে তুলছে, তার প্রথমটি হলো, যে কোনো প্রতিবাদ, বিক্ষোভ বা আন্দোলনের অধিকারকে কঠোরভাবে দমন করা। মতপ্রকাশের স্বাধীনতার অভাব, জটিল আর্থ-সামাজিক অবস্থা এবং জোরপূর্বক শ্রম ও তাদের ওপর চালানো দমন-পীড়নও ভয়ানক পরিস্থিতিকে আরও তীব্র করে তুলছে। এ ধরনের একটি পরিবেশে মানুষ বেশিদিন বেঁচে থাকতে পারে না।

তিনি নির্বিচারে আটক, নির্যাতন, দুর্ব্যবহার এবং ন্যায়বিচারের অনুপস্থিতির জন্য উত্তর কোরিয়ার নিন্দা করেন। তিনি বলেন, গত ৭০ বছরে দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের নাগরিকসহ বহু লোকজন নিখোঁজ বা গুম হয়ে গেছেন। এ ধরনের এক লাখের বেশি মানুষের খোঁজখবর এখন আর পাওয়া যাচ্ছে না।

un high commissioner for human rights volker turk 1জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার ভলকার তুর্ক

এ সময় তিনি দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা বিভিন্ন পদক্ষেপের জবাবদিহিতার দাবি জানিয়ে বলেন, দারুণ হতাশাজনক এ পরিস্থিতি থেকে উত্তর কোরিয়া চাইলে বেরিয়ে আসতে পারে। এ যাত্রা স্ব-আরোপিত বিচ্ছিন্নতার শেষ প্রান্ত থেকে একটি ইউ-টার্ন নেওয়ার মাধ্যমে শুরু হতে পারে। আর এর জন্য দেশকে উন্মুক্ত করা, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সাথে পুনরায় সংযুক্ত হওয়া, আন্তর্জাতিক সহযোগিতা গ্রহণ করা, মানুষের সার্বিক কল্যাণের দিকে নজর দিতে হবে।

উত্তর কোরিয়া নিয়ে বুধবার নিরাপত্তা পরিষদে আলোচনা হয়। এর আগে এই আলোচনার প্রস্তাবনা দেওয়া হলে চীন ও রাশিয়া এর বিরোধিতা করেছিল। তারা যুক্তি দিয়েছিল, নিরাপত্তা পরিষদে বিষয়টি নিয়ে আলোচনার প্রয়োজন নেই। কারণ উত্তর কোরিয়ার এই মানবাধিকার লঙ্ঘন আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা ও শান্তির জন্য কোনো ধরনের হুমকি সৃষ্টি করে না। এর পরিবর্তে তারা বিশ্বে চলমান সংকটগুলোর দিকে ফোকাস করার দাবি জানায়। তবে শেষ পর্যন্ত কাউন্সিলের ১৫ সদস্যের মধ্যে ১২ জন অধিবেশন আয়োজনের পক্ষে ভোট দিলে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়।

Get the latest world news from our trusted sources. Our coverage spans across continents and covers politics, business, science, technology, health, and entertainment. Stay informed with breaking news, insightful analysis, and in-depth reporting on the issues that shape our world.

360-degree view of the world's latest news with our comprehensive coverage. From local stories to global events, we bring you the news you need to stay informed and engaged in today's fast-paced world.

Never miss a beat with our up-to-the-minute coverage of the world's latest news. Our team of expert journalists and analysts provides in-depth reporting and insightful commentary on the issues that matter most.