আপনি পড়ছেন

গাজা যুদ্ধে হামাসকে ধ্বংস করার ঘোষিত লক্ষ্য নিয়ে প্রকাশ্যেই প্রশ্ন তুলে ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়েছেন ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর মুখপাত্র রিয়ার অ্যাডমিরাল ড্যানিয়েল হাগারি। তিনি স্পষ্টভাবে বলেছেন, ‘হামাসকে নির্মূল করা সম্পূর্ণ অসম্ভব।’ এই বক্তব্যের মাধ্যমে দেশটির রাজনৈতিক ও সামরিক নেতৃত্বের মধ্যে বিরল এক প্রকাশ্য মতবিরোধ প্রকাশ পেয়েছে, যা ইসরায়েলি রাজনীতিতে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করেছে।

benjamin netanyahu during a war cabinet meeting at the kirya in tel avivযুদ্ধকালীন মন্ত্রীসভার বৈঠকে বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু

ইসরায়েলের চ্যানেল ১৩ টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে হাগারি বলেন, ‘হামাস ধ্বংস, হামাসকে গায়েব করে দেওয়ার ব্যাপার- এটা আসলে জনসাধারণের চোখে ধূলো ছিটিয়ে দেওয়ার শামিল। হামাস কেবল একটি সশস্ত্র গোষ্ঠী নয়, বরং একটি মতাদর্শ, একটি রাজনৈতিক দল। এটা ফিলিস্তিনি জনগণের হৃদয়ে গেঁথে আছে। যে কেউ যদি মনে করে থাকে যে, আমরা সামরিক শক্তিতে হামাসকে নির্মূল করতে পারব, সে ভুল ভাবছে।’

প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু যুদ্ধ শুরু থেকেই হামাসের সম্পূর্ণ ধ্বংসের প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসছেন। হাগারির এই বক্তব্যের পর নেতানিয়াহুর দপ্তর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলেছে, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বাধীন দেশটির নিরাপত্তা মন্ত্রিসভা গাজায় হামাসের সামরিক ও শাসন ক্ষমতা ধ্বংস করাকে যুদ্ধের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য হিসেবে নির্ধারণ করেছে এবং ইসরায়েলি সেনাবাহিনী এই লক্ষ্য অর্জনে কঠোরভাবে বদ্ধপরিকর।

অন্যদিকে, হাগারির বক্তব্যের পর সেনাবাহিনীও দ্রুত এ বিষয়ে স্পষ্টীকরণ দিয়ে জানিয়েছে, মন্ত্রিসভা কর্তৃক নির্ধারিত যুদ্ধের লক্ষ্য অর্জনে তারা নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছে এবং সারা যুদ্ধ জুড়ে, দিনরাত, এ লক্ষ্যে তারা কাজ করে যাবে।

উল্লেখ্য, গত ৭ অক্টোবর দক্ষিণ ইসরায়েলে হামাসের হামলার জবাবে ইসরায়েল গাজায় পাল্টা আক্রমণ শুরু করে। নবম মাসে প্রবেশ করা এ যুদ্ধে এখন পর্যন্ত ৩৭,১০০ জনেরও বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। যুদ্ধ এখনো অব্যাহত থাকায় এবং কোন পক্ষই ঝুঁকি নিতে না চাওয়ায় হামাস ইস্যুতে ইসরায়েলি রাজনীতিতে এই মতবিরোধ নতুন মাত্রা যোগ করবে বলে মনে করা হচ্ছে।

প্রাথমিকভাবে ইসরায়েলের যুদ্ধ প্রচেষ্টা দেশটিতে ব্যাপক জনসমর্থন পেয়েছিল। তবে সাম্প্রতিক মাসগুলোতে ব্যাপক বিভেদ দেখা দিয়েছে। নেতানিয়াহু ‘সম্পূর্ণ বিজয়’ অর্জনের প্রতিশ্রুতি দিলেও, ক্রমবর্ধমান সমালোচক ও বিক্ষোভকারীরা যুদ্ধবিরতির দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ করছেন। এতে করে গাজায় আটকে থাকা প্রায় ১২০ জন জিম্মিকে ফেরত আনা সম্ভব হবে। ইসরায়েলি সেনাবাহিনী ইতোমধ্যে ৪০ জনেরও বেশি জিম্মিকে মৃত বলে ঘোষণা করেছে এবং কর্মকর্তারা আশঙ্কা করছেন যে জিম্মিদের আটকে রাখা হলে এই সংখ্যা আরও বাড়বে।

গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গাজার ভেতরে যুদ্ধে ৩৭,১০০ জনেরও বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। মন্ত্রণালয় যোদ্ধা এবং বেসামরিক নাগরিকদের মধ্যে কোনো পার্থক্য করে না। যুদ্ধের ফলে ফিলিস্তিনে ওষুধ, খাদ্য এবং অন্যান্য সরবরাহের প্রবাহ ব্যাপকভাবে ব্যাহত হয়েছে। ফিলিস্তিনিরা ব্যাপক খাদ্যাভাবের সম্মুখীন হচ্ছে।

জাতিসংঘ বুধবার বলেছে, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির কারণে কেরেম শালোম সীমান্ত দিয়ে ইসরায়েল থেকে ত্রাণ সামগ্রী আনতে পারছে না তাদের কর্মীরা।

জাতিসংঘের উপ-মুখপাত্র ফারহান হক বলেছেন, ইসরায়েল যেখানে প্রতিদিন লড়াইয়ে বিরতি ঘোষণা করেছে, সেই রুটে যদিও কোনো সংঘর্ষ হয়নি, তবুও ওই এলাকায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির কারণে জাতিসংঘের কর্মীরা ত্রাণ সামগ্রী আনতে পারছেন না। এর অর্থ হলো, ইসরায়েল রবিবার দৈনিক বিরতি ঘোষণার পর থেকে কোনো ট্রাক এই নতুন রুট ব্যবহার করতে পারেনি।

সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে, ইসরায়েলি সেনাবাহিনী মিশরের সীমান্তবর্তী রাফা শহরে তাদের আক্রমণ কেন্দ্রীভূত করেছে। ইসরায়েলের দাবি, হামাসের শেষ প্রতিরোধ এই শহরে।

গাজার ২৩ লক্ষ জনসংখ্যার অর্ধেকেরও বেশি মানুষ এর আগে অন্যান্য এলাকার সংঘর্ষ এড়াতে রাফায় আশ্রয় নিয়েছিল। ইসরায়েলি সেনাবাহিনী বিমান হামলা এবং স্থল অভিযান চালানোর কারণে এখন শহরটি প্রায় জনশূন্য।

ইসরায়েলি সেনাবাহিনী জানিয়েছে, তারা ৫০০-এরও বেশি জঙ্গিকে হত্যা করেছে এবং হামাস বাহিনীর ব্যাপক ক্ষতি করেছে। তবে কর্মকর্তারা ধারণা করছেন, অভিযানটি আরও কয়েক সপ্তাহ ধরে চলবে।

রাফা সীমান্ত পরিচালনাসহ মিশরের সঙ্গে গাজার সীমান্তবর্তী ১৪ কিলোমিটার (৮ মাইল) এলাকা ইসরায়েল নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রচারিত ফুটেজে দেখা যাচ্ছে, সীমান্ত পরিচালনা কেন্দ্রটি পুড়ে কালো এবং ধ্বংস হয়ে গেছে। শুধুমাত্র যাত্রী টার্মিনালটি অক্ষত রয়েছে। ইসরায়েল ওই এলাকায় প্রবেশের আগে, সীমান্ত পরিচালনা কেন্দ্রটি মানবিক সহায়তা প্রদান এবং ফিলিস্তিনিদের অঞ্চলটি ত্যাগ করার জন্য ব্যবহৃত হতো।

রাফা পৌরসভার প্রধান আহমেদ আল-সুফি বুধবার বলেছেন, ইসরায়েলি হামলায় স্থাপনা ও অবকাঠামোর ৭০ শতাংশেরও বেশি ধ্বংস হয়ে গেছে। তিনি ইসরায়েলি বাহিনীর বিরুদ্ধে রাফার শিবিরগুলোকে পরিকল্পিতভাবে লক্ষ্যবস্তু করার অভিযোগ এনে বলেন, একটি পাড়ার সমগ্র আবাসিক এলাকা ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে। আল-সুফি এ বিষয়ে অতিরিক্ত তথ্যের অনুরোধের তাৎক্ষণিক কোনো জবাব দেননি।

পৃথক এক ঘটনায়, রাফায় ইসরায়েলি বিমান হামলায় ১১ জন নিহত হয়েছে বলে ইউরোপীয় হাসপাতালের ডা. সালেহ আল-হামাস জানিয়েছেন। এ ঘটনা সম্পর্কে বিস্তারিত আর কিছু জানা যায়নি। ইসরায়েলি সেনাবাহিনীও তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য করেনি।

Get the latest world news from our trusted sources. Our coverage spans across continents and covers politics, business, science, technology, health, and entertainment. Stay informed with breaking news, insightful analysis, and in-depth reporting on the issues that shape our world.

360-degree view of the world's latest news with our comprehensive coverage. From local stories to global events, we bring you the news you need to stay informed and engaged in today's fast-paced world.

Never miss a beat with our up-to-the-minute coverage of the world's latest news. Our team of expert journalists and analysts provides in-depth reporting and insightful commentary on the issues that matter most.