আপনি পড়ছেন

যুক্তরাষ্ট্রের নানা নাটকীয়তার পর প্রথম এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান হাতে পেল তুরস্ক। চুক্তি এবং সে অনুযায়ী অর্থ জমা দেয়ার পরও এই সর্বাধুনিক যুদ্ধবিমান তুরস্ককে হস্তান্তর বন্ধ করতে আইন পাস করে ফেলেছে মার্কিন কংগ্রেস।

turkey got f 35 jet

তবে বৃহস্পতিবার প্রথম এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান তুরস্কের কাছে হস্তান্তর করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে আনুষ্ঠানিকভাবে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ও রাডার সিস্টেম সম্পন্ন এই যুদ্ধবিমান হস্তান্তর করা হয়। খবর: আনাদোলু এজেন্সি।

যুদ্ধবিমানটি হাতে পেলেও সেটি আপাতত তুরস্কে আনা হচ্ছে না। বরং যুক্তরাষ্ট্রের একটি বিমান ঘাঁটিতে এই যুদ্ধবিমান ব্যবহারের প্রশিক্ষণ নেবে তুর্কি পাইলটরা। আগামী বছরের শেষ নাগাদ এই যুদ্ধবিমান তুরস্কে পৌঁছতে পারে।

এদিকে তুরস্ককে এই যুদ্ধবিমান হস্তান্তর ঠেকাতে মার্কিন কংগ্রেসের হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস এবং সিনেটে রিপাবলিকান আর ডেমোক্র্যাটরা যৌথভাবে বিলও পাস করেছে। তবে এতে এখনো সই করেননি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

অন্যদিকে চুক্তি অনুযায়ী আজই ছিল তুরস্ককে প্রথম এফ-৩৫ হস্তান্তরের শেষ দিন। নানা নাটকীয়তার পর শেষ দিনে এসেই এই যুদ্ধবিমান হস্তান্তর করা হয়। যদিও ইতোমধ্যে এই যুদ্ধবিমান ব্যবহার করে কয়েকটি অভিযানও চালিয়েছে ইসরায়েল।

যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত সমরাস্ত্র প্রস্তুতকারী কোম্পানি লকহিড মার্টিনের সঙ্গে এই যুদ্ধবিমান তৈরিতে ১৯৯৯ সাল থেকে জড়িত তুরস্ক। বেশ কয়েকটি তুর্কি কোম্পানি এই যুদ্ধবিমানের বিভিন্ন অংশ তৈরিতে কাজও করছে।

চুক্তি অনুযায়ী দ্বিতীয় যুদ্ধবিমানটি আগামী কয়েকদিনের মধ্যে হস্তান্তরের কথা রয়েছে। আর ২০১৯ সালের মার্চ নাগাদ তৃতীয় ও চতুর্থ এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান হস্তান্তর করা হবে। এছাড়া পঞ্চম এবং ষষ্ঠ যুদ্ধবিমানটি একই বছরের নভেম্বরে সরাসরি তুরস্কে পাঠানো হবে। তবে সব কিছুই নির্ভর করছে যুক্তরাষ্ট্রের সদিচ্ছার উপর।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর