আপনি পড়ছেন

পবিত্র হজ পালন করতে গিয়ে মিনার পদদলনের ঘটনায় শহিদ হওয়া বাংলাদেশিদের সংখ্যা নিয়ে দেখা দিয়েছে বিভ্রান্তি। সোমবার ২২ জন বাংলাদেশি হাজির শহিদ হওয়ার তথ্য দেয় ধর্ম মন্ত্রণালয়। পরে এ তথ্য ঠিক করে ১০ জনের কথা উল্লেখ করা হয়। কিন্তু হজ অ্যাজেন্সি অ্যাসোসিয়েসন অব বাংলাদেশ (হাব) আবার বলছে ১৮ জনের কথা। সব মিলিয়ে শহিদ হওয়া বাংলাদেশিদের সংখ্যা নিয়ে ভালোই বিভ্রান্তি দেখা দিয়েছে। আহত হওয়াদের সঠিক সংখ্যাও জানা যায়নি এখনো। ভিন্ন ভিন্ন সূত্র মতে যা জানা গেছে, তাতে আহতদের সংখ্যা ৯০ থেকে ৯৮ জনের মধ্যে।

mina disaster 2015

শহিদ হওয়া বাংলাদেশিদের মধ্যে মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার একই বাড়ির তিনজন সদস্য আছেন বলে জানিয়েছেন ধর্ম মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব ড. বোরহানুদ্দিন। সোমবার সচিবালয়ে সংবাদ মাধ্যমকে এ তথ্য জানান তিনি।

বোরহানুদ্দিন জানান, শহিদদের পরিবার চাইলে মৃতদেহ দেশে আনতে পারেন অথবা মক্কাতেই তাদেরকে দাফনের অনুমতি দিতে পারবেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বেশিরভাগ পরিবারই চাইছেন শহিদদের মৃতদেহ মক্কাতেই দাফন করা হোক।

২৪ সেপ্টম্বর, বাংলাদেশ সময় ঈদুল আযহার আগের দিন হজ পালনের শেষ আনুষ্ঠানিকতায় শয়তানের স্তম্ভে পাথর নিক্ষেপের সময় হাজিরা হঠাৎ ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়েন। তখনই পদদলনের ভয়াবহ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় শেষ পর্যন্ত ৯৩৪জন হাজির শহিদ হওয়া বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে। আহত হয়েছেন সহস্রাধিক হাজি।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন

আফগানিস্তানে ক্রিকেট ম্যাচে হামলায় নিহত ৯

জাকারবার্গের প্রশ্নের জবাবে কাঁদলেন মোদি

সৌদি মুফতি: হজের দুর্ঘটনা মানুষের নিয়ন্ত্রণের বাইরে ছিলো