আপনি পড়ছেন

উন্নত বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে প্রায় কাছাকাছি সময়ে বাংলাদেশেও করোনাভাইরাসের টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়েছে। গত ২৭ জানুয়ারি বিকেলে আনুষ্ঠানিকভাবে রাজধানীতে ২৫ জন টিকা নিয়েছেন। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলেও টিকা পৌঁছে গিয়েছে।

china cv 19 vaccine human

করোনাভাইরাসের টিকা নেওয়ার পর সাধারণ কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে বলে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বলেছেন। এর মধ্যে রয়েছে টিকার স্থানে ব্যথা হওয়া, জ্বরজ্বর ভাব কিংবা মৃদু জ্বর হওয়া, শরীর মেজমেজ করা ইত্যাদি। এ রকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সব ধরনের টিকা নেওয়ার পরই হয়ে থাকে।

করোনাভাইরাসের টিকা নেওয়ার পর সাধারণ এসব পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিলে ঘাবড়ানোর কোনো কারণ নেই।

তবে কারো মাঝে যদি তীব্র পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়, উপরে উল্লেখ করা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াগুলো ছাড়াও যদি অন্যকোনো শারীরিক সমস্যা বোধ হয়, সে ক্ষেত্রে করণীয় সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক এবং কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় সমন্বয় কমিটির উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল্লাহ একটি দৃষ্টিভঙ্গি দিয়েছেন।

dr abm abdullahডা. এ বি এম আবদুল্লাহ

ডা. এ বি এম আবদুল্লাহ বলেন, কোভিড-১৯ এর টিকা নেওয়ার পর প্রত্যেককেই একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বিশেষ পর্যবেক্ষণে রাখা হবে। চিকিৎসকরা দেখবেন টিকা নেওয়ার পর কারো মাঝে তীব্র কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে কি না। প্রয়োজনে জরুরি ভিত্তিতে টেলি মেডিসিন সেবাও দেওয়া হবে। যেহেতু টিকা গ্রহিতারা চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণেই থাকবেন তাই কোনো জটিল প্রতিক্রিয়া দেখা গেলে চিকিৎসকরাই ব্যবস্থা নেবেন।

ডা. এ বি এমন আবদুল্লাহ আরো বলেন, টিকা নেওয়ার পরও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবানা পুরোপুরি উড়িয়ে দেওয়া যাবে না। স্বাস্থ্যবিধি আগের মতই মানতে হবে। চিকিৎসকদের বিশেষ পর্যবেক্ষণ শেষে কারো যদি খুসখুসে কাশি, জ্বর-ঠান্ডার সমস্যা দেখা যায়, তাহলে অবিলম্বে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর