advertisement
আপনি পড়ছেন

কাশ্মিরে দায়িত্ব পালনরত দুই সেনার ছিন্নভিন্ন মরদেহ উদ্ধার করেছে ভারত। ওই দুই সেনা হত্যা এবং তাদের অঙ্গচ্ছেদ করার জন্য পাকিস্তানকে দুষছে তারা। পাকিস্তান এই অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছে, তাদের সেনারা পেশাদার। এ ধরনের আচরণ তারা করে না, দাবি পাকিস্তানের।

indian soldier died at jk border

প্রায় সাত দশক ধরে কাশ্মিরের অধিকার নিয়ে সংঘাতে জড়িয়ে আছে পাকিস্তান- ভারত। সেই সংঘাত অতিসম্প্রতি আরো ভয়াবহতার রূপ নিচ্ছে। তারই যেনো এক প্রামাণ্য আভাস মিললো উল্লেখিত দুই সেনার অঙ্গচ্ছেদের ঘটনার মাধ্যমে।

ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী অরুন জেটলি এ ঘটনাকে নিন্দনীয় এবং অমানবিক বলে মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেছেন যে, এ ধরনের ঘটনা যুদ্ধের সময়ও দেখা যায় না।

একই সঙ্গে পাকিস্তানকে পরোক্ষ একটা হুমকিও দিয়ে রেখেছেন অরুন জেটলি। তিনি বলেন, ‘আমাদের সেনাবাহিনীর প্রতি পুরো দেশের বিশ্বাস আছে। তারা নিশ্চিতভাবেই এ ঘটনার একটা যথাযথ জবাব দিবে। আমরা সেই জবাবের অপেক্ষা করছি।’

কাশ্মির নিয়ে ভারত- পাকিস্তানের দ্বন্দ্ব সাম্প্রতিক সময়ে মারাত্মকভাবে বেড়ে যাওয়ার মূল কারণ— কাশ্মিরের স্থানীয়রা ভারতের বিপক্ষে অবস্থান নেয়া শুরু করেছে। সেখানকার ছাত্র- তরুণ সমাজ ভারতীয় সেনাদের উপর গত কয়েকমাসে বেশ কয়েকবার প্রতিবাদে ফেটে পড়েছে। আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশ্লেষকরা বলছেন, এবার হয়তো ভারত স্থায়ীভাবে কাশ্মিরের নিয়ন্ত্রণ হারাবে।

সত্যিই সেটা হয়, তবে আবারও যুদ্ধে জড়িয়ে পড়তে পারে ভারত- পাকিস্তান। পরমাণবিক শক্তিধর দুই দেশের যুদ্ধ পুরো বিশ্বের জন্যই বয়ে আনতে পারে অশান্তি।