আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 00 মিনিট আগে

পাঞ্জাব প্রদেশের এমপি, মন্ত্রী, মুখ্যমন্ত্রী তথা জনপ্রতিনিধিদের বেতন বৃদ্ধিতে চরম হতাশা প্রকাশ করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। বৃহস্পতিবার টুইটারে দেওয়া স্ট্যাটাসে এ হতাশা প্রকাশ করেন তিনি।

imran khan diappointed

এর আগে বুধবার পাঞ্জাব রাজ্য পরিষদ একটি বিল পাস করে। বিলে মুখ্যমন্ত্রী, স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার, মন্ত্রী ও অ্যাসেম্বলি সদস্যদের বেতন ও সুযোগ-সুবিধা বাড়ানো হয়েছে।

পাকিস্তানি গণমাধ্যম ডন বলছে, বিল পাসের পর স্পিকারের বেতন মাসে ৩৭ হাজার রুপি থেকে ২ লাখ রুপি, ডেপুটি স্পিকারের বেতন ৩৫ হাজার থেকে ১ লাখ ৮৫ হাজার এবং একইভাবে অ্যাসেম্বলি সদস্যদের বেতন ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা বেড়ে গেছে।

বিল পাসের পর দিন অর্থাৎ বৃহস্পতিবার টুইটারে পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘অ্যাসেম্বলি সদস্য, মন্ত্রী এবং বিশেষ করে মুখ্যমন্ত্রীর বেতন ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি সংক্রান্ত পাঞ্জাব বিধানসভার সিদ্ধান্ত চরমভাবে হতাশ হয়েছি।’

খান আরো বলেন, ‘এ ধরনের উদ্যোগ সমর্থনযোগ্য হওয়া দরকার, পাকিস্তানের সমৃদ্ধি ফিরে এসেছে…কিন্তু এই মুহুর্তে যখন আমরা জনগণের মৌলিক চাহিদা মেটাতে পারছি না তখন, এটি সমর্থনযোগ্য নয়।’

অন্যদিকে, দেশটির তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী টুইটারে পরিস্থিতি সম্পর্কে মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেছেন, মনে হচ্ছে পাঞ্জাব সরকার প্রধানমন্ত্রী এবং সরকারের কঠোর অর্থনৈতিক নীতিগুলি সম্পর্কে অবগত নয়, ‘অন্যথায় নিজেদের জন্য এই ধরনের বিশাল সুবিধা নেওয়ার ঘটনা ঘটতো না।’