advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 32 মিনিট আগে

যুক্তরাজ্যের বার্মিংহামে এক রাতে অন্তত পাঁচটি মসজিদে সহিংস হামলা চালিয়ে ভাংচুর চালানো হয়েছে। বুধবার দিবাগত রাত ও বৃহস্পতিবার ভোরে এসব হামলা চালানো হয়। তবে কারা এই হামলা চালিয়েছে সে সম্পর্কে কিছু বলতে পারেনি পুলিশ।

mosque attack britain

প্রসঙ্গত, এক সপ্তাহ আগে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে জুমার নামাজের সময় দুটি মসজিদে হামলার রেশ কাটতে না কাটতেই ব্রিটেনে এ ধরনের হামলার ঘটনা ঘটলো। অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভূত উগ্রবাদী ডানপন্থী খ্রিস্টীয় ধর্মীয় সন্ত্রাসী ব্রেনটন টারান্ট ক্রাইস্টচার্চে ওই হামলা চালায়। যাতে অন্তত ৫০ জন মুসল্লি নিহত এবং ৬০ জনের বেশি আহত হয়।

পুলিশের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি বলছে, বুধবার দিনগত রাত আড়াইটার দিকে অজ্ঞাত ব্যক্তি হাতুড়িজাতীয় বস্তু দিয়ে ব্রিকফিল্ড রোডের মসজিদের জানালার কাঁচ সম্পূর্ণ ভাংচুর করে।

mosque attack birmingham

পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, ওই ঘটনার ৪৫ মিনিট পর এর্ডিংটন এবং পরে অ্যাস্টন, পেরি বার এলাকার মসজিদে হামলার খবর পাওয়া যায়। এ ছাড়া স্থানীয় সময় ১০টার দিকে আলবার্ট রোডে আরেকটি মসজিদে হামলার খবর আসে।

ওয়েস্ট মিডল্যান্ডের পুলিশ বলছে, এসব হামলার কোনো উদ্দেশ্য এখনও জানা যায়নি। পুলিশের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের কর্মকর্তারা ঘটনার তদন্ত করছেন।

অ্যাস্টনের ফয়জুল ইসলাম মসজিদের চেয়ারম্যান ইউসেফ জামান বলেছেন, ‘আমি প্রাথমিকভাবে এই হামলার ঘটনায় বিস্মিত হয়েছি।’

তিনি বলছেন, ‘আতঙ্কের কারণে এখন বয়স্করা বলছেন, তারা শিশুদের মসজিদে নেবেন না, কারণ তারা উদ্বিগ্ন যে, তারা নিরাপদ নন।’

ইউসেফ জামান বলছেন, ‘কিন্তু আমরা ইবাদত বন্ধ করব না, আমরা স্বাভাবিকভাবেই তা চালিয়ে যাব, আমরা ওদের (ইসলাম বা মুসলিম বিদ্বেষী) জয়ী হতে দেব না; আমরা ওদের উপেক্ষা করব।’

এসব হামলার প্রেক্ষাপটে মসজিদের নিরাপত্তা নিয়ে একটি সমাবেশ আয়োজনের পরিকল্পনা করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

উইটন রোডের উইটন ইসলামিক সেন্টারের এক মুখপাত্র বলছেন, স্থানীয় সময় দেড়টার দিকে মসজিদের জানালা ভাংচুর করার সময় সিসিটিভি ক্যামেরায় এক ব্যক্তি ধরা পড়েছে।

তিনি বলেন, ‘সামনের দিকের সব জানালা, প্রায় ছয়টি, সম্পূর্ণ ভাংচুর করা হয়েছে।’

কাউন্সিলর জন কটন টুইটারে বলেছেন, ‘এই গুণ্ডারা বার্মিংহামের কেউ নয় এবং আমাদের বিভক্ত করতে পারবে না।’

ওয়েস্ট মিডল্যান্ড পুলিশের চিফ কনস্টেবল ডেভ থমসন বলেছেন, ‘গত রাতের হামলার উদ্দেশ্য সম্পর্কে আমরা এখনও কিছু জানতে পারিনি।’

তবে দায়ীদের খুঁজে বের করতে পুলিশ ও কাউন্টার টেররিজম ইউনিট এক সঙ্গে কাজ করছে বলেও জানান তিনি।

বার্মিংহাম মসজিদ কাউন্সিল এক বিবৃতিতে এই হামলার ব্যাপারে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে।

sheikh mujib 2020