advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 12 মিনিট আগে

হিন্দুদের হলি উৎসবে না গিয়ে বাড়ির সামনের রাস্তায় ক্রিকেট খেলায় এক মুসিলম যুবককে বেধড়ক পিটিয়ে গুরুতর জখম করেছে ৩৫ থেকে ৪০ জনে যুবকের একটি দল। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের গুরুগ্রামের ভন্সি এলাকায়। শুক্রবার বিকেলের এ গণপিটুনির ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ভারতজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়ে যায়।

40 odd petalled young man

কলকাতা২৪ এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ৩৫ থেকে ৪০ জন উন্মত্ত ব্যক্তি একটি ছেলেকে রাস্তায় ফেলে বেধড়ক পিটুনি দেয়। এ সময় হামলাকারীদের গায়ে হোলির রঙ ছিলো। তাদের হাতে ছিল বাঁশ, লাঠি, পানির পাইপ, লোহার রড, হকি স্টিক ও ব্যাট। তারা সাবাই মিলে একজনকে পেটাচ্ছিল। শিউরে ওঠার মত ঘটনা।

এ ঘটনার মূলে রয়েছে ভারতে ক্রমবর্ধমান মুসলিমবিদ্বেষ। কারণে, আক্রান্ত যুবক শাহীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ হলো, তিনি মুসলিম হয়ে কেন হিন্দুদের হোলিতে সামিল হয়নি। সে হলির বদলে কেন বাড়ির সামনের রাস্তায় ক্রিকেট খেলছিল।

ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, হামলাকারী সকলের বিরুদ্ধে মত্ত থাকার অভিযোগ রয়েছে। তারা হোলির রঙ খেলায় মাতোয়ারা হয়ে মুসলিম যুবককে খেলতে নিষেধ করে। কিন্তু এমন নিষেধের কারণ জানতে চাইলেই তারা মারতে মারতে শহীদকে বেহুশ করে ফেলে।

একজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, মারের আগাত সহ্য করতে না পেরে এক পর্যায়ে শাহীদ অজ্ঞান হয়ে পড়ে। এ সময় শাহীদের পরিবারের লোকজন তাকে রক্ষা করতে আকুতি-মিনতি করছিল।

ঘটনাস্থল থেকে একটু দূরে এসে এই দৃশ্যের ভিডিও মোবাইলে ধারণ করেন এক ব্যক্তি। সেটি পরে টুইটারে পোস্ট দেয়া হলে ভাইরাল হয়ে যায়।

এ ঘটনায় স্থানীয় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন শাহীদের পিতা মুহম্মদ সামসাদ। ভিডিও ফুটেজের ওপর ভিত্তি করে তদন্ত করার কথা জানিয়েছেন গুরুগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার(অপরাধ) সামশের সিং। শীঘ্রই অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করার ব্যাপারে আশ্বাসও দিয়েছেন তিনি।

sheikh mujib 2020