advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 56 মিনিট আগে

শনিবার রাত পর্যন্ত জানা যাচ্ছিল, ভারতের মহারাষ্ট্রে কংগ্রেস ও এনসিপির সঙ্গে মিলে সরকার গঠন করছে শিবসেনা আর মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন দলটির প্রধান উদ্ভব ঠাকর। কিন্তু রাত পোহানোর পর সকালে বদলে যাওয়া হিসেবে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর শপথ নিলেন বিজেপি নেতা দেবেন্দ্র ফডণবীস। শিবসেনাকে বাদ দিয়ে এনসিপি বিজেপিকে সমর্থন দেয়ায় দ্বিতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হলেন তিনি।

shibshena bjp moharastroবামে শিবসেনা প্রধান, ডানে নতুন মুখ্যমন্ত্রী ও উপ-মুখ্যমন্ত্রী

দেশটির এই সময়'র প্রতিবেদনে বলা হয, ফডণবীসের সরকারের উপ-মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন শরিক দল এনসিপি’র প্রধান শারদ পাওয়ারের ভাতিজা অজিত পাওয়ার। মহারাষ্ট্রের নতুন মুখ্যমন্ত্রী ও উপ-মুখ্যমন্ত্রীকে টুইট করে অভিনন্দনও জানিয়েছেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

শপথ নেয়ার পর নতুন মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফডণবীস বলেন, ‘বিজেপি মহারাষ্ট্রে স্থায়ী সরকার দিতে চেয়েছিল। কিন্তু শিবসেনা জনরায় মেনে নেয়নি। সরকার গঠনে সাহায্য করায় এনসিপি-কে অনেক ধন্যবাদ।’

এদিকে মহারাষ্ট্রে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পাওয়ায় সরকার গঠনে ব্যর্থ হয় বিজেপি ও শিবসেনা। এ নিয়ে দীর্ঘদিনের মিত্র ও জোট শরিক দল দুটির মধ্যে বিরোধ তুঙ্গে উঠলে কেন্দ্রীয় সরকারে শিবসেনার একমাত্র মন্ত্রীও পদত্যাগ করে। কিন্তু তারপরেও সরকার গঠনে দেরি হওয়ায় গত এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে রাজ্যটিতে রাষ্ট্রপতির শাসন জারি ছিল।

এই সময়ের মধ্যে দীর্ঘ দর–কষাকষির পর মহারাষ্ট্রে সরকার গঠনের ব্যাপারে একজোট হয় শিবসেনা, এনসিপি ও কংগ্রেস। শনিবার রাত পর্যন্ত সবকিছু ঠিকঠাকই ছিল। কিন্তু এনসিপিকে উপ-মুখ্যমন্ত্রীর পদ দিয়ে শিবসেনা জোট থেকে ভাগিয়ে এনে সরকার গঠন করে বিজেপি।

ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, গত কয়েকদিন ধরে মহারাষ্ট্রের বিজেপি নেতাদের অভয় দিয়ে আসছিলেন দলটির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। ফলে তার কূটচালেই শেষ মুহূর্তে এসে সবাইকে অবাক করে বিজেপি ও এনসিপি সরকার গঠন করলো। এতে কুপোকাত দীর্ঘ দিনের মিত্র শিবসেনা বড়সড় ধরা খেলো।

sheikh mujib 2020