advertisement
আপনি দেখছেন

পরমাণু কর্মসূচি বিষয়ে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আলোচনার অগ্রগতি না হলে বছরের শেষে ক্রিসমাস ডে’তে যুক্তরাষ্ট্রকে উপহার হিসেবে পারমাণবিক বোমা দিতে চায় উত্তর কোরিয়া। সম্প্রতি এমনটাই ইঙ্গিত দিয়েছে দেশটি।

neuclear boombপরমাণু ক্ষেপণাস্ত্র

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, নিজেদের ওপর আরোপিত অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের জন্য উত্তর কোরিয়ার প্রশাসন যুক্তরাষ্ট্রকে চাপে রাখার চেষ্টা করছে। এর জন্য এ বছরের শেষের মধ্যে ওয়াশিংটনকে পারমাণবিক কর্মসূচি ও অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে আলোচনা শেষ করার কথাও জানিয়েছে পিয়ংইয়ং।

পাশাপাশি দেশটি থেকে বলা হয়েছে, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আলোচনার অগ্রগতি না হলে এর পরিণাম আমেরিকার জন্য ভয়াবহ হবে। বছরের শেষে দেশটি উত্তর কোরিয়া থেকে কি ধরণের ক্রিসমাস উপহার পাবে তা নির্ভর করে যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তের ওপর।

উত্তর কোরিয়ার প্রশাসন জানায়, নিজেদের স্বার্থেই পরমাণু সংলাপ থেকে বেরিয়ে যেতে চাইছে আমেরিকা। তাদের অভিযোগ, ট্রাম্প প্রশাসন আগামী ২০২০ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সুবিধা ভোগ করার জন্যই এ পরিকল্পনা করেছে।

সম্প্রতি এক বিবৃতিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বিষয়ক উত্তর কোরিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী রি থাইয়ে সং বলেন, ওয়াশিংটনের সঙ্গে আলোচনার বিষয়ে সর্বোচ্চ ধৈর্য্য ধারণ করেছে পিয়ংইয়ং। এ বিষয়ে উত্তর কোরিয়া কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপও নিয়েছে। তাই পরমাণু কর্মসূচির বিষয়ে এখন যুক্তরাষ্ট্রকেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। তাদের ওপরেই নির্ভর করছে ক্রিমাসে তারা উত্তর কোরিয়া থেকে কি উপহার পেতে যাচ্ছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের জুলাই মাসে প্রথম পরমাণু ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায় উত্তর কোরিয়া। সে সময় দেশটির সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন জানান, ক্ষেপণাস্ত্রগুলো আমেরিকার জন্য উপহারের অংশ। সম্প্রতিও কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায় পিয়ংইয়ং।