advertisement
আপনি দেখছেন

করোনাভাইরাসের কারণে মৃতদের শেষকৃত্যও করতে হচ্ছে অনেক সাবধানে। এতে সময়ও লাগছে বেশি। স্পেন, ফ্রান্স ও ইতালিসহ অনেক দেশের মর্গ লাশে ভর্তি হয়ে আছে। এসব দেশের সৎকারকর্মীদের শেষকৃত্য সম্পন্ন করতে গিয়ে নাভিশ্বাস অবস্থা। অনেক জায়গায় আগাম কবর খুঁড়ে রাখা হচ্ছে। এর মধ্যে অন্যতম ব্রাজিল, যুক্তরাজ্য।

sao paolo villa parmosa graveyardসাওপাওলোর ভিলা ফারমোসা সিমেট্রি, ব্রাজিল

লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে ভয়াবহতা বাড়ার আশঙ্কায় আগাম প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের সবচেয়ে বড় সমাধিক্ষেত্র সাওপাওলোর ভিলা ফারমোসা সিমেট্রিতে আগে থেকেই খুঁড়ে রাখা হচ্ছে কবর।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ব্রাজিলের মতো একই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে যুক্তরাজ্যে। দেশটির কর্নওয়াল এলাকায় অ্যাগনেস সেমিট্রিতে সৎকারকর্মীরা আগে থেকেই খুঁড়ে রাখছেন কবর।

সেখানে কর্মরত এক সৎকারকর্মী ক্লাইভ কালবার বলেন, এখানে আমি কবর খুঁড়ে থাকি এবং সবকিছুর দেখভাল করে থাকি। দুর্ভাগ্যবশত কাজটি আমাদের করতে হয় জীবিকার তাগিদেই।

বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে তিনি বলেন, অনেকেই ভাবছেন তারা এই মহামারি থেকে পার পেয়ে যাবেন। এমন ভাবা উচিত হবে না। মানুষ সবসময় বেঁচে থাকার কথা ভাবে। মরার কথা কেউ ভাবে না। কিন্তু তারা জানে না কি কঠিন পরিস্থিতি তাদের জন্য অপেক্ষমান। ইতোমধ্যে অনেক স্থানে আগে থেকেই কবর খুঁড়ে রাখা হচ্ছে। আমাকেও তাই করতে হচ্ছে।

agnes cemetry ukঅ্যাগনেস সেমিট্রি, যুক্তরাজ্য

ক্লাইভ কালবার বলেন, এর আগে কখনো একজন মারা মানুষের মৃত্যুর আগে তার জন্য কবর খুঁড়ে রাখিনি। তবে এবার করতে হচ্ছে। এই কাজে আমি কিছুটা মর্মাহত। কারণ অনেকে এখনো মারাই যায়নি। কিন্তু তাদের জন্য কবর প্রস্তুত করা রাখা হয়েছে। আমার আশা এ কবরগুলো যাতে ব্যবহার না হয়।

যুক্তরাজ্যে এখন পর্যন্ত ৪১ হাজার ৯০৩ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে চার হাজার ৩১৩ জনের।