advertisement
আপনি দেখছেন

মরণঘাতী করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে কার্যকর প্রমাণ হতে পারে বিড়ালের দুটি ওষুধ। কানাডাস্থ ইউনিভার্সিটি অব অ্যালবার্টার গবেষকরা এমন দাবি করেছেন। সম্প্রতি তাদের করা গবেষণা বিখ্যাত মেডিকেল জার্নাল দ্য ল্যানসেটে প্রকাশিত হয়।

cat 0123মানবদেহে করোনার মোকাবেলা করবে বিড়ালের ওষুধ

ফক্স নিউজের বরাতে জানা যায়, বিড়ালের ওই ওষুধ দুটির নাম জিসি৩৭৬ এবং জিসি৩৭৩। উভয় ওষুধই বিড়ালকে সংক্রামক ভাইরাস এফকোভের সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করে। এফকোভ হলো করোনাভাইরাসেরই একটি স্বগোত্রীয় ভাইরাস। কোভিড-১৯ যেসব সমস্যার সৃষ্টি করে এফকোভের ক্ষেত্রেও একই ধরনের সমস্যা দেখা যায়।

গবেষণায় নেতৃত্ব দেয়া ইউনিভার্সিটি অব অ্যালবার্টার অধ্যাপক জোয়ান লেমিইউক্স বলেন, এফকোভের সঙ্গে কোভিড-১৯ করোনাভাইরাসের অনেক বেশি সাদৃশ্য রয়েছে। বিড়ালের দেহে এফকোভের সংক্রমণ একটু বেশি হয়। ২০টি বিড়ালের ওপর জিসি৩৭৬ এবং জিসি৩৭৩ প্রয়োগ করে আমরা দেখেছি, প্রাণীগুলো সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠেছে। কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি।

pandemic symbolic picture11করোনাভাইরাসের মাইক্রোস্কোপিক ছবি

গবেষণাটি বলছে, এফকোভ করোনাভাইরাসে যে এনজাইম ব্যবহার করে সংক্রমণ ঘটায়, তা নিষ্ক্রিয় করে দেয় জিসি৩৭৬ এবং জিসি৩৭৩। এর ফলে ভাইরাসটি কার্যত কোনো সংক্রমণ ঘটাতে পারে না।

গবেষকরা বলছেন, আমরা ল্যাবে কোভিড-১৯ এর ওপর এই ওষুধ দুটি প্রয়োগ করে দেখেছি। একই ফলাফল পেয়েছি। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে- এই ওষুধ বন্যপ্রাণীর ওপর নিরাপদ প্রমাণ হয়েছে। যার ফলে পরবর্তী গবেষণা করতে আমাদের কোনো সমস্যা হবে না।

এ প্রসঙ্গে অধ্যাপক জোয়ান লেমিইউক্স বলেন, এই ওষুধ মানবদেহে প্রয়োগ করতে আমাদের তুলনামূলক কম সমস্যায় পড়তে হবে। কারণ ইতোমধ্যে এটি বন্যপ্রাণীর ওপর প্রয়োগে নিরাপদ প্রমাণ হয়েছে। তাছাড়া ওষুধ দুটি তৈরিই করা হয়েছে ভাইরাসের বিরুদ্ধে কাজ করার জন্য। তাই আমি আশাবাদী, চলমান এই করোনার মহামারি ঠেকাতে ওষুধ দুটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

sheikh mujib 2020