advertisement
আপনি পড়ছেন

সিরিয়ার আলেপ্পোর বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকায় ত্রাণবাহী গাড়িবহরে বিমান হামলার ঘটনা ঘটেছে। হামলায় বহু হতাহতের আশঙ্কা করা হচ্ছে। সিরীয় সেনাবাহিনী প্রায় সপ্তাহব্যাপী এক অস্ত্রবিরতি ঘোষণা করার কয়েক ঘণ্টা পরই ন্যাক্কারজনক এই হামলার ঘটনা ঘটলো।

un relief

জানা গেছে, হামলার শিকার ওই ত্রাণবাহী বহরটি সিরিয় রেড ক্রিসেন্টের সদস্যরা নিয়ে যাচ্ছিল। আলেপ্পোর উরম আল-কুবরা শহরে ত্রাণবাহী গাড়িবহরের ওপর হামলা হয়। হামলায় ১২ জন নিহত হয়েছেন। জাতিসংঘের এক মুখপাত্র বলেন, ত্রাণবহরের ১৮ থেকে ৩১টি ত্রাণবাহী গাড়ির ওপর হামলা হয়েছে।

সিরিয়ার মানবাধিকার সংগঠন 'সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস'-এর দাবি, সিরীয় সরকার এবং রুশ যুদ্ধবিমান ত্রাণবাহী গাড়িবহরের ওপর হামলা করেছে। এই হামলায় ত্রাণকর্মী, ট্রাকচালকসহ ১২ জন নিহত হয়েছেন বলে জানান তারা। তবে সিরীয় সরকার এই হামলার বিষয়ে এখনো কিছু জানায়নি।

এদিকে সিরিয় রেড ক্রিসেন্ট বলছে, 'আক্রান্ত ত্রাণবহরটি আলেপ্পো থেকে বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত প্রত্যন্ত অঞ্চলের দিকে যাচ্ছিল। আমরা অনলাইনে প্রকাশিত কিছু ছবিতে দেখেছি দীর্ঘাকৃতির ট্রাক এবং লরিতে আগুন জ্বলছে।

ঘটনাটিকে 'চরম নিষ্ঠুরতা' বলে অভিহিত করেছেন সিরিয়ায় নিযুক্ত জাতিসংঘের বিশেষ দূত স্টেফান ডি মিসটুরা। তিনি বলেন, 'প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিচ্ছিন্ন জনগোষ্ঠীর জন্য দীর্ঘ প্রক্রিয়া ও প্রস্তুতি শেষে ত্রাণবহরটি পাঠানো হয়েছিল।' তার মানবিক সহায়তাবিষয়ক উপদেষ্টা জ্যান এগল্যান্ড বলেন, 'সেখানে প্রায় ৭৮ হাজার মানুষের ত্রাণ প্রয়োজন। শহরের একটি গুদামে মালামাল নামানোর সময় হামলাটি চালানো হয়।'

আপনি আরো পড়তে পারেন

ভারতীয় আগ্রাসন রুখে দিতে প্রস্তুত পাকবাহিনী

পাকিস্তান ভূখণ্ডে আক্রমণ করতে চায় ভারতীয় সেনাবাহিনী

আইএসের অবস্থানে সিরিয়া-রাশিয়ার যৌথ হামলা

রিজার্ভ চুরি: দেড় কোটি ডলার ফেরত দিচ্ছে ফিলিপাইন

মোদী: হামলায় জড়িতদের কেউ রেহাই পাবে না