advertisement
আপনি পড়ছেন

মারিওপোলের আজভস্টাল ইস্পাত কারখানায় আটকাপড়া ইউক্রেনীয় সৈন্যদের আত্মসমর্পণ আজ শেষ হচ্ছে। গতকাল পর্যন্ত তিনদিনে ১ হাজার ৭৪৪ জন সৈন্য আত্মসমর্পণ করেছে। আরও পাঁচশো থেকে আটশো সৈন্য সেখানে আছে বলে ধারণা করছেন রুশ কর্মকর্তারা।

azovstal hospital bed tlsdগুরুতর আহত ইউক্রেনীয় সৈন্যদের দোনেৎস্কের হাসপাতালে ভর্তি করেছে রুশ সেনাবাহিনী

স্থানীয় সাংবাদিকরা জানিয়েছেন, বুধবার আত্মসমর্পণকারীদের মধ্যে আজভ ব্যাটালিয়নের ডেপুটি কমান্ডার স্ভ্যাতোস্লাভ পালামার রয়েছেন। তিনি গতকাল রাত ৯টায় আজভস্টাল কারখানা থেকে বের হন। রাতেই তাকে ইউক্রেন-সীমান্তবর্তী রুশ শহর রোস্তভ-অন-ডন শহরের গোর্কি স্ট্রিটে অবস্থিত ম্যাক্সিমাম সিকিউরিটি প্রিজনে নিয়ে যাওয়া হয়।

এর আগে সোমবার ২৬৪, মঙ্গলবার ৬৯৫ ও বুধবার ৭৮৫ জন ইউক্রেনীয় সৈন্য আত্মসমর্পণ করে। তবে প্রথম তিনদিনে উচ্চপদস্থ কোনো সেনা কর্মকর্তা আত্মসমর্পণ করেনি বলে জানিয়েছেন রাশিয়া-সমর্থিত দোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিকের প্রধান ডেনিস পুশিলিন।

জানা গেছে, আত্মসমর্পণ শুরুর আগে আজভস্টাল কারখানায় প্রায় আড়াই হাজার ইউক্রেনীয় সৈন্য ছিল। এদের মধ্যে ৪০৪ জন আহত এবং আরও ৫৫ জন গুরুতর আহত। অন্যের সাহায্য ছাড়া যারা চলতে পারছিল না, তাদেরকে গুরুতর আহত হিসেবে উল্লেখ করে দোনেৎস্ক অঞ্চলের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের কিছুটা দূরের ইয়েলেনিকোভা যুদ্ধবন্দী ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া হয়।

মঙ্গলবার ও বুধবার রাতে দোনেৎস্ক থেকে সেনা প্রহরায় প্যাডি ওয়াগনের বহর আজভ সাগরের তীরবর্তী রাশিয়ার দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় বন্দরনগরী তাজানরগে যেতে দেখা গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, আত্মসমর্পণকারী সৈন্যদের একটি অংশকে রাশিয়ায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এর মধ্যে কিছু বন্দীকে ইউক্রেন সীমান্তবর্তী রোস্তভ-অন-ডন শহরের গোর্কি স্ট্রিটে অবস্থিত কারাগারের আইসোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে।

আত্মসমর্পণকারীদের মধ্যে ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর ৫৩তম, ৫৪তম, ৫৬তম ব্রিগেড, ৩৬তম মেরিন ব্রিগেডের সদস্য রয়েছেন। এছাড়া ৫০১তম ও ৫০৩তম ব্রিগেডের প্রথম ব্যাটালিয়নের সদস্যরাও আজভস্টালে ছিলেন। এর বাইরে ইউক্রেন ন্যাশনাল গার্ডের ১২ ব্রিগেডের সদস্যরাও রয়েছেন।

দোনেতস্কের মিলিশিয়া সূত্রের বরাতে রুশ সাংবাদিকরা জানিয়েছেন, আটকাপড়া সৈন্যদের মধ্যে কয়েকজন সন্তানসম্ভবা রয়েছেন। এছাড়া কারখানাটির হিমাগারে প্রায় দুইশো মরদেহ আছে।

জাতিসংঘে রাশিয়ার ডেপুৃটি পার্মানেন্ট রিপ্রেজেনটেটিভ দিমিত্রি পলিয়ানস্কি বলেছেন, আজভস্টালে আটকাপড়া ইউক্রেনীয় জাতীয়তাবাদী জঙ্গীরা কোনো শর্ত ছাড়াই আত্মসমর্পণ করেছে।

জাতিসংঘ মহাসচিবের কার্যালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, আজভস্টাল থেকে ইউক্রেনীয়দের সরিয়ে নেওয়ার প্রক্রিয়ায় জাতিসংঘের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। তবে জাতিসংঘ আশা করে, তাদের সঙ্গে আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী আচরণ করা হবে।