advertisement
আপনি পড়ছেন

মধ্য ইউক্রেনের ক্রেমেনচুকের একটি জনাকীর্ণ শপিং সেন্টারে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে রুশ বাহিনী। এতে কমপক্ষে ১৫ জন নিহত এবং ৪০ জন আহত হয়েছেন। শপিং সেন্টারটিতে ওই সময় এক হাজারের বেশি বেসামরিক লোক অবস্থান করছিলেন বলে জানা গেছে। খবর আল জাজিরা, দ্য গার্ডিয়ান।

a shopping mall hit by a russian missile strikeজ্বলছে ইউক্রেনের শপিং সেন্টার

জানা গেছে, রাশিয়ার পশ্চিম কুরস্ক অঞ্চলের ওপর দিয়ে উড়ে আসা রাশিয়ান টু-২২এমথ্রি দূরপাল্লার বোমারু বিমানগুলো শপিং সেন্টারে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায়। একই সময়ে আরেকটি ক্ষেপণাস্ত্র ক্রেমেনচুকের একটি ক্রীড়া অঙ্গনে আঘাত করে।

মধ্য পোলতাভা অঞ্চলের গভর্নর দিমিত্র লুনিন টেলিগ্রামে লেখেন, সোমবার জনাকীর্ণ শপিং সেন্টারে চালানো দুটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ১৫ জনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। তিনি আশঙ্কা করেন, ধ্বংসস্তূপের মধ্যে আরও মৃতদেহ থাকতে পারে। আঞ্চলিক রেসকিউ সার্ভিস প্রধান টেলিভিশনে বলেন, আমরা বুঝতে পারছি না কত মানুষ ধ্বংসস্তূপের নিচে রয়ে গেছে।

aftermath of russian missile strike on ukrainian mallআগুন নেভাতে কাজ করছেন ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ হামলার একটি ফুটেজ শেয়ার করেন, যাতে দেখা যায়, শপিং সেন্টারটি দাউ দাউ করে জ্বলছে এবং আকাশে কালো ধোঁয়ার কুণ্ডলি উঠছে। ক্ষুব্ধ জেলেনস্কি বলেন, এ হামলা বেসামরিক নাগরিকদের বিরুদ্ধে নগ্ন সন্ত্রাসবাদ। রাশিয়ার সামরিক হামলার লক্ষ্যবস্তু হওয়ার কোনো উপাদানই এর মধ্যে ছিল না। এটি কোনোভাবেই রুশ বাহিনীর জন্য হুমকি ছিল না।

সাধারণ ইউক্রেনীয়দের ওপর এ হামলাকে রাশিয়ার কাপুরুষত্ব উল্লেখ করে জেলেনস্কি বলেন, তাদের কাছ থেকে শালীনতা ও মানবতার আশা করা বৃথা।

আল জাজিরার সংবাদদাতা চার্লস স্ট্র্যাটফোর্ড কিয়েভ থেকে জানান, আহতদের মধ্যে প্রায় অর্ধেক হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। শপিং সেন্টারটিতে আঘাত হানার আগে রুশ বাহিনী শহরের সেতুটিতে হামলা চালিয়েছিল, যাতে একজন নিহত এবং পাঁচজন আহত হয়।

মেয়র ভিটালি মালেতস্কি ফেসবুকে লেখেন, আক্রমণটি খুব জনাকীর্ণ এলাকায় আঘাত হানে, সশস্ত্র বাহিনীর সাথে যার কোনো ধরনের যোগসূত্র নেই।

জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের কার্যালয় এই হামলাকে ‘সম্পূর্ণ দুঃখজনক’ বলে নিন্দা করেছে। এক প্রেস ব্রিফিংয়ে গুতেরেসের মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিক বলেছেন, শপিং মলে হামলা করা সম্পূর্ণ নিন্দনীয়। আমরা আবারো বলছি, আন্তর্জাতিক মানবিক আইনের অধীনে যুদ্ধের পক্ষগুলো বেসামরিক নাগরিক এবং বেসামরিক অবকাঠামো রক্ষা করতে বাধ্য।

এদিকে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন, শপিং সেন্টারে হামলা রুশ নেতা ভ্লাদিমির পুতিনের ‘নিষ্ঠুরতা ও বর্বরতার গভীরতা’ প্রদর্শন করে।

গ্রুপ অফ সেভেনের নেতারা সোমবার গভীর রাতে এই হামলার নিন্দা জানিয়ে একটি বিবৃতিতে বলেছেন, নিরীহ বেসামরিক মানুষের ওপর নির্বিচারে হামলা একটি যুদ্ধাপরাধ। এর জন্য রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন এবং দায়ীদের জবাবদিহি করতে হবে।

ইউক্রেনের অনুরোধে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ হামলার বিষয়ে আলোচনার জন্য আজ মঙ্গলবার নিউইয়র্কে একটি জরুরি বৈঠক আহ্বান করেছে।