advertisement
আপনি দেখছেন

দেশজুড়ে আসল চিকিৎসকদের সংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি আশঙ্কাজনকভাবে বাড়ছে আসলের পরিচয়ে ভুয়া চিকিৎসকের সংখ্যা। উচ্চতর ডিগ্রীধারীর পরিচয়ে চেম্বার ও হাসপাতালে রোগী দেখার নামে প্রতারণায় প্রতিদিন বিপুল অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে তারা। সম্প্রতি এক অনুসন্ধানে এমন তথ্যই জানা গেছে।

fake doctor

দেশে বতর্মানে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের (বিএমডিসি) স্বীকৃতিপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রেশনধারী চিকিৎসকের সংখ্যা প্রায় ৮৯ হাজার। এর মধ্যে এমবিবিএস চিকিৎসকের সংখ্যা ৮১ হাজার ১৮৫ ও ডেন্টাল ৭ হাজার ৪৮৪ জন।

বিএমডিসির রেজিস্ট্রার ডা. জাহেদুল হক বসুনিয়া জানান, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‌্যাব) সহ বিভিন্ন আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর অভিযানে সম্প্রতি খুলনাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় বেশ কিছু সংখ্যক ভুয়া চিকিৎসক আটক করা হয়েছে।

বসুনিয়া বলেন, 'আসল চিকিৎসকদের গাফিলতির কারণে ভুয়া ডাক্তারের সংখ্যা বাড়ছে। বারবার এমবিবিএস ও বিডিএস চিকিৎসকদের তাগাদা দেয়ার পরও তারা ভিজিটিং কার্ড, প্রেসক্রিপশন প্যাড ও সাইনবোর্ডে রেজিস্ট্রেশন নম্বর লিখছেন না। আর এই সুযোগ ব্যবহার করে তাদের রেজিস্ট্রেশন নম্বর ব্যবহার করে ডাক্তার সেজে টাকা হাতানোর ব্যবসা খুলে বসছে যে কেউ।'

তিনি বলেন, 'বিশ্বের যেকোন প্রান্ত থেকে বিএমডিসির ওয়েবসাইটে চিকিৎসকের রেজিস্ট্রেশন নম্বর লিখে সার্চ দিলেই সেই চিকিৎসক সম্পর্কে তথ্য পেতে পারেন। কিন্তু ডাক্তাররা বিএমডিসির নির্দেশনা ও অনুরোধ মানছেন না বলে চিকিৎসায় স্বচ্ছতা আসছে না।'

যে কোন ধরণের আইনি ঝামেলা মুক্ত থাকতে চিকিৎসককে ভিজিটিং কার্ড, প্রেসক্রিপশন ও সাইনবোর্ডে অবশ্যই রেজিস্ট্রেশন নম্বর উল্লেখ এবং বিএমডিসির স্বীকৃত নয় এমন ডিগ্রির কথা উল্লেখ না করার আহ্বান জানান ডা. বসুনিয়া।