advertisement
আপনি দেখছেন

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে বাতিল করে দেয়া হয়েছে এ বছরের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও সমমানের পরীক্ষা। এক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের পরবর্তী ক্লাসে উত্তীর্ণ হতে 'অটো প্রমোশনের' একটা সম্ভাবনা দেখা দিলেও তা আর হচ্ছে না। যে কোনোভাবেই হোক, মূল্যায়ন পরীক্ষা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক।

education ministry logo

বৃহস্পতিবার রাজধানীর বকশি বাজারে অবস্থিত ঢাকা বোর্ডে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডগুলোর চেয়ারম্যানদের এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বৈঠকে সকল শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যানরা উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান বলেন, জেএসসি পরীক্ষা বাতিল হলেও শিক্ষার্থীদের পরবর্তী ক্লাসে উত্তীর্ণ হতে 'অটো প্রমোশনের' সুযোগ নেই। যে কোনোভাবেই হোক, মূল্যায়ন পরীক্ষা নেয়া হবে। এরপরই তাদের নবম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ করা হবে। এক্ষেত্রে কিভাবে পরীক্ষা নেয়া যায় সে ব্যাপারে একটি নির্দেশনা তৈরি করে দেবে বাংলাদেশ পরীক্ষা উন্নয়ন ইউনিট (বেডু)।

jsc examজেএসসি পরীক্ষা দিচ্ছেন শিক্ষার্থীরা, পুরনো ছবি

নির্দেশনা তৈরির ক্ষেত্রে বিবেচনা করা হবে, করোনা শুরুর আগে অর্থাৎ ১৫ মার্চ পর্যন্ত যে ক্লাসগুলো হয়েছিল, পরে সংসদ টিভি ও অনলাইনে যতটুকু ক্লাস হয়েছে সেটি। আর যদি নভেম্বরের মধ্যে ক্লাস শুরু করা সম্ভব হয় তাহলে সেই ক্লাসগুলোও মূল্যায়নের জন্য বিবেচিত হবে, যোগ করেন তিনি।

আগামী ডিসেম্বরের শেষ নাগাদ এই মূল্যায়ন করার লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করা হয়েছে জানিয়ে অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক বলেন, যদি স্বশরীরে মূল্যায়ন করা সম্ভব হয় তাহলে সেটা করা হবে। আর নয়তো অনলাইনের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানগুলো নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী মূল্যায়ন করবে। তবে এই মূল্যায়ন পরীক্ষার মাধ্যমে হবে নাকি অন্য কোনো উপায়ে তা স্ব স্ব প্রতিষ্ঠান ঠিক করবে।

sheikh mujib 2020