advertisement
আপনি দেখছেন

বিড়ালের বাচ্চা লালন-পালন করা অটিজম শিশুদের আচরণগত সমস্যার উন্নতি করতে সহায়তা করে। সম্প্রতি ইউনিভার্সিটি অফ মিসৌরি হিউম্যান-অ্যানিম্যাল ইন্টারেক্টেশন রিসার্চ সেন্টারের এক গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে।

cat photoবিড়ালের বাচ্চা

এক্ষেত্রে গবেষকরা ৬ থেকে ১৪ বছর বয়সী অটিজম শিশুদের ১১টি পরিবারকে বিড়াল গ্রহণ করতে বলেছিলেন। এরপর মোট ১৮ সপ্তাহ ধরে শিশুদের পর্যবেক্ষণ করা হয়।

পেডিয়াট্রিক নার্সিং জার্নালে প্রকাশিত ওই গবেষণায় দেখা গেছে, বিড়ালদের খাওয়ানো ও দেখাশুনার কারণে অটিজমে আক্রান্ত শিশুদের হাইপার্যাকটিভিটি, অমনোযোগ, বুলি এবং প্রজেকশনের মতো আচরণগত সমস্যার উন্নতি করতে সহায়তা করেছে।

autistic childrenঅটিজম শিশু

গবেষক দলের প্রধান গ্রেচেন কার্লিসেল বলেন, তারা যে সকল সংবেদনশীল সমস্যার মুখোমুখি হন, সেটির কারণে অটিজম আক্রান্ত শিশুদের জন্য কুকুরের চেয়ে বিড়ালদের খাওয়ানো বেশি উপযুক্ত হতে পারে।

কুকুর পালন শিশুদের মধ্যে সংবেদনশীল প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে। কিন্তু বিড়ালদের নিয়ে এ জাতীয় সমস্যা অনুভব হবে না, যোগ করেন তিনি।

ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমসের বরাত দিয়ে এ খবর প্রকাশ করেছে আনাদোলু এজেন্সি।