আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 38 মিনিট আগে

দীর্ঘ ৯৫ বছর পর গাঁজা সেবনের উপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে কানাডা সরকার। আর এতে করে দেশটিতে গাঁজা সেবনকারীর পাশাপাশি গাঁজা চাষও বেড়েছে। বর্তমানে দেশটিতে গ্রিনহাউস তৈরি করে গাঁজা চাষের প্রবণতা দিনদিন বাড়ছে। তবে গাঁজা চাষের বেলায় সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে দক্ষ কর্মীর অভাব।

marijuana canada

দেশটিতে লেমিংটনের লাইসেন্সপ্রাপ্ত একটি কোম্পানি গাঁজা চাষ করে। গাঁজা চাষে তারা গ্রিনহাউস প্রক্রিয়া ব্যবহার করে থাকে। তারা কয়েকদিন আগে ক্যারিবীয়ান দ্বীপ ও গুয়েতেমালা থেকে ৫০ জন কর্মীকে প্রাথমিকভাবে নিয়োগ দেয়। কিন্তু সপ্তাহ না পেরোতেই ওখান থেকে আটজন কর্মী চলে যায়। ফলে বিপাকে পড়ে কোম্পানিটি।

ওই প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জানান, গ্রীষ্মকালে যখন গরমের পরিমান বেশি থাকে তখন কাজ করা সত্যিই কষ্টকর। আমরা চেষ্টা করি সর্বক্ষণ শীতল হাওয়া চালিয়ে রাখতে। সবচেয়ে কষ্ট হয় জুলাই-আগষ্টে।

পর্যাপ্ত কর্মী না থাকায় ১৪ হাজার গাঁজা গাছ নষ্ট হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের দক্ষ কর্মী প্রয়োজন। তবে আমরা সেভাবে পাচ্ছিনা।

শুধু এই প্রতিষ্ঠানের নয়, একই সমস্যায় ভুগছে কানাডার বেশিরভাগ গাঁজা প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান।

এদিকে, পরিস্থিতি বিবেচনা করে কানাডার আটটি বড় গাঁজা প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান এক হাজার ৭’শ কর্মী নিয়োগ করবে বলে বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে। এছাড়াও গাঁজা চাষের বিস্তৃতির জন্য আগামী এক বছরে দেশটিতে অন্তত এক লাখ ২৫ হাজার লোককে চাকরিতে নিয়োগ দেয়া হবে।