advertisement
আপনি দেখছেন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের কারণে মৃত্যুহার তুলনামূলক কমে এসেছে। নতুন আক্রান্তের তুলনায় মৃত্যুহার অনেকটাই কম। তবে অন্যান্য ভাইরাস থেকে এটি অনেক মারাত্মক বলে দাবি করেছে বিখ্যাত মেডিকেল জার্নাল ল্যানসেট। গতকাল সোমবার তাদের এক গবেষণার তথ্য প্রকাশ করেছে মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন।

coronavirus pic 01প্রতীকী ছবি

ল্যানসেট বলছে, করোনার কারণে ০.৬৬ শতাংশ রোগীর মৃত্যু হচ্ছে। সংখ্যাটি সাধারণ ফ্লুর সংক্রমণে মৃত্যুর চেয়ে অনেক বেশি। ফ্লু ভাইরাসে মৃত্যুর হার ০.১ শতাংশ।

গবেষণায় দেখা যায়, গত কয়েক সপ্তাহের হিসাবে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা অনেক কমে এসেছে। প্রথম দিকে ভাইরাসটি শতকরা ১.৩৮ শতাংশ রোগীর প্রাণ কেড়ে নিয়েছে। এ অবস্থা বহাল ছিলো দীর্ঘদিন।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় এলার্জি ও ইনফেকশন ডিজিজের পরিচালক ডক্টর এন্থনী ফাউসি বলেন, মার্চের শুরুর দিকে করোনায় মৃত্যুহার বরাবর দুই শতাংশ ছিল। কিন্তু মার্চের শেষের দিকে তা কমে এসেছে।

ল্যানসেটের গবেষণায় ভাইরাসে আক্রান্তের প্রকৃত সংখ্যা খুঁজে বের করার প্রচেষ্টা করা হয়েছে। কারণ এখন মৃত্যুর তথ্য পাওয়া গেছে প্রায় সব হাসপাতালের।

তবে গবেষকদের ধারণা, হাসপাতালের বাইরেও অনেকে মারা গেছেন। এ ছাড়া অনেকে আক্রান্ত হওয়ার পরও টেস্ট করাতে পারেননি। সেসব রোগীও হিসাবের বাইরে রয়ে গেছেন। এ বিষয়ে এখনো গবেষণা চলছে।

coronavirus picপ্রতীকী ছবি

ল্যানসেটের গবেষণায় আরো বলা হয়, ৮০ বছরের ওপর যারা আক্রান্ত হয়েছেন তাদের ৭.৮ শতাংশ মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছেন। অন্যদিকে, আক্রান্তদের মধ্যে যাদের বয়স ৯ এর নিচে তাদের মৃত্যুহার ০.০০১৬১ শতাংশ।

যাদের বয়স ৪০ এর নিচের তাদের মৃত্যু হার ১৬ শতাংশ। এ হিসাব অন্য যেকোনো ভাইরাস থেকেই অনেক বেশি। তাই সবাইকে চিকিৎসক ও বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী চলার নির্দেশনা দিয়েছেন গবেষকরা।

sheikh mujib 2020