advertisement
আপনি দেখছেন

চীনের করোনা পরিস্থিতির ওপর এই প্রথম বৃহৎ পরিসরে কোনো গবেষণার ফলাফল প্রকাশ পেলো। গবেষণাটি করেছে বিখ্যাত মেডিকেল সাময়িকী দ্য ল্যানসেট। গতকাল সোমবার তারা গবেষণাটি প্রকাশ করেছে। এতে দেখা যায়, করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে ৪০ বছরের বেশি বয়সী রোগীদের ঝুঁকি বেশি। অর্থাৎ রোগীর বয়স যত বেশি ঝুঁকিও তত বেশি। খবর দ্য গার্ডিয়ান।

coronavirus chinaচীনের উহানের একটি হাসপাতালের ছবি

ল্যানসেটের গবেষণায় দেখা যায়, চীনে যারা করোনায় আক্রাত হয়েছেন, গড়ে তাদের মৃত্যুহার ১ দশমিক ৩৮ শতাংশ। এর মধ্যে বিভিন্ন বয়সী রোগীদের মধ্যে মৃত্যুহার বিভিন্ন রকম।

আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে যাদের বয়স ১০ থেকে ১৯, এর মধ্যে তাদের মৃত্যু হার ০.০৪ শতাংশ। এ হার বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বেড়েছে। ৮০ বছরের ওপর যাদের বয়স, তাদের ক্ষেত্রে এ হার ১৮ শতাংশ।

মধ্যবয়সী অর্থাৎ যাদের বয়স ৪০ এর ওপর তাদের মধ্যে ৪ শতাংশ মৃত্যুহার লক্ষ করা গেছে। ৫০ ঊর্ধ্বদের মধ্যে এ হার আরো বেশি অর্থাৎ ৮ শতাংশ।

ল্যানসেট যে গবেষণাটি করেছে তা চীনের বিভিন্ন ল্যাবে নিশ্চিত হওয়া ৭০ হাজার ১১৭ জন রোগীর তথ্য থেকে করা হয়েছে। প্রাদুর্ভাবের পর থেকে এত বড় পরিসরে এর আগে কোনো গবেষণা পায়নি।

coronavirus chainaচীনে করোনাভাইরাসের শনাক্তকরণ চলছে (জানুয়ারি মাসের ছবি)

গবেষক দলে কাজ করা আজরা ঘানি বলেন, চীনের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আমরা যে রিপোর্ট প্রস্তুত করেছি তা বিশ্বের যেকোনো দেশের জন্য প্রযোজ্য। এতে দেখা গেছে, যাদের বয়স ৫০ এর ওপর তারা বেশি মৃত্যুর ঝুঁকিতে আছে। ৫০ থেকে বয়স যত বাড়বে মৃত্যুর ঝুঁকিও তত বেশি হবে।

তিনি আরো বলেন, আমরা দেখেছি, চীনে যত সংখ্যক মানুষের মৃত্যু ঘটেছে তার ৮০ শতাংশ মানুষের বয়স ৪০ এর ওপর। সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর হার পেয়েছি আমরা ৮০ এর ঊর্ধ্ব বয়সী রোগীদের। ১৮ শতাংশ মৃত্যুহার পাওয়া গেছে প্রবীণ রোগীদের ক্ষেত্রে।

ওই গবেষক বলেন, তাই বিশ্বের মানুষের কাছে আমার পরামর্শ হলো- বয়স্ক ব্যক্তিদের এ সংকটাপন্ন সময়ে সবকিছু থেকে দূরে রাখার চেষ্টা করুন।