advertisement
আপনি দেখছেন

অতি সম্প্রতি বেশ ঘটা করে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের ‘জরুরি ব্যবহার’ অনুমোদন দিয়েছে ভারত। তার দুদিন বাদেই উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সিরাম ইনস্টিটিউটকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে, আগামী কয়েক মাস এই ভ্যাকসিন রপ্তানি করা যাবে না। এমন নির্দেশনার কারণে অন্যান্য দেশের মতো বিপাকে পড়ে গেল বাংলাদেশও, ভ্যাকসিন পাওয়া নিয়ে তৈরি হলো জটিলতার।

serum vaccine indiaসিরাম ইনস্টিটিউট কর্তৃক উৎপাদিত করোনার ভ্যাকসিন

ভারত সরকারের এমন নির্দেশনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ইনস্টিটিউটের সিরাম সিইও আদর পুনাওয়াল্লা। তিনি বলেন, কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির কারণে ভারতের বিশাল জনগোষ্ঠি ঝুঁকিতে রয়েছেন। সরকারের নির্দেশ, আগে ভারতীয় জনগনকে ভ্যাকসিন দিতে হবে, তারপরও অন্য দেশে রপ্তানি।

এই নিষেধাজ্ঞায় বিপাকে পড়ে গেলো দরিদ্র দেশগুলো। কারণ অনেক দেশ ভারত থেকে ভ্যাকসিন আমদানি করার প্রক্রিয়া চূড়ান্ত করেছিল। বাংলাদেশও আছে এই তালিকায়। সিরাম ইনস্টিটিউটের সঙ্গে বাংলাদেশের বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের যে চুক্তি হয়েছে, তাতে জানুয়ারির মধ্যেই ভ্যাকসিন পাওয়ার আশা করেছিল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। কিন্তু এখন প্রক্রিয়াটা একটা জটিলতার মধ্যে পড়ে গেল।

friday update

ভারতের হঠাৎ এমন নিষেধাজ্ঞার ব্যাপারে বাংলাদেশ এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি। চুক্তি অনুযায়ী, সিরাম ইনস্টিটিউটের কাছ থেকে ৩ কোটি ভ্যাকসিন আমদানি করার কথা বাংলাদেশের। প্রতি মাসে ৫০ লাখ করে ৬ মাসের মধ্যে এই ভ্যাকসিন আনার কথা ছিল।

sheikh mujib 2020