advertisement
আপনি দেখছেন

ভারতের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি বলিউডে পাকিস্তানি শিল্পীদের অবদান কম নয়। দীর্ঘদিন ধরেই তাদের গায়কীতে সমৃদ্ধ হয়েছে বলিউডের অনেক মুভি। কিন্তু কয়েক বছর ধরে সেখানে পাকিস্তানিদের প্রবেশ নিষেধ। বিষয়টি সবার জানা থাকলেও এর কারণ জানা নেই কারোই। আবুধাবিতে কনসার্টে গান গাওয়ার সময় নতুন করে সে প্রশ্ন তুলেছেন ভারতের জনপ্রিয় সংগীত তারকা অরিজিত সিং। জিও টিভি।

arijit singhঅরিজিত সিং

করোনা মহামারির কারণে প্রায় দুই বছর স্টেজে পারফর্ম করেননি অরিজিত সিং। গত শুক্রবার তিনি আবারো গান গাইতে নামেন মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে বড় ইনডোর স্টেডিয়ামে। এই কনসার্টের টিকিট নিয়ে বেশ হাহাকারের কথা শোনা গেছে। ভারতের পাশাপাশি পাকিস্তানের দর্শকদের সংখ্যাও নেহায়েত কম ছিল না।

হিন্দি গান গাইতে গাইতে হঠাৎই তিনি পাকিস্তানের জনপ্রিয় শিল্পী আতিফ আসলামের গান ‘পেহলি নজর মে ক্যায়সা জাদু করদিয়া’ গাইতে শুরু করেন। গানের মাঝেই তিনি উপস্থিত দর্শকদের প্রশ্ন করেন, পাকিস্তানি শিল্পীদের গান কি এখনও ভারতে বন্ধ রয়েছে? আতিফ আসলাম আমার প্রিয় শিল্পীদের একজন, শাফকাত আমানাত আলিও।

atif aslam nusrat fateh ali khanআতিফ আসলাম ও নুসরাত ফতেহ আলি খান

তিনি বলেন, এই প্রশ্নটা আমি করতামই, কারণ আমি কাউকে পাত্তা দিই না। আন্তর্জাতিক মঞ্চে ভারত-পাক দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নিয়ে এমন বাঁকা প্রশ্ন করেও চিন্তিত নন অরিজিত। সুদৃঢ় কণ্ঠে তিনি বলেন, ‘সত্যি বলছি, আমার কিচ্ছু যায় আসে না।’

পরে অরিজিত কনসার্টে পাকিস্তানের কিংবদন্তি শিল্পী নুসরাত ফতেহ আলি খান, পাক ব্যান্ড জুনুনের জনপ্রিয় গান সইয়োনি গেয়ে শোনান দর্শকদের।

ভারতে উরি হামলার পর থেকেই বলিউডে পাক শিল্পীদের কাজ করা নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়। পরে পুলওয়ামা হামলার মতো ঘটনা পরিস্থিতি আরো ঘোলাটে করে ফেলে। এতে ভারতে পাক শিল্পীদের কাজ করার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয় অল ইন্ডিয়া সিনে ওয়ার্কার্স অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে। গত তিন বছর ধরে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে পাক গায়ক বা অভিনেতাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে।

বলিউডি মুভির একটি বড় বাজার পাকিস্তান। সঙ্গত কারণেই মুভিতে পাকিস্তানের কোনো শিল্পীকে যুক্ত করতে পারলে তাতে ব্যবসার সম্ভাবনা বাড়ে। কিন্তু সিনে ওয়ার্কার্স অ্যাসোসিয়েশনের নিষেধাজ্ঞার কারণে তা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন পরিচালক-প্রযোজকরা। জানা গেছে, পাকিস্তানি শিল্পীদের ওপর ভারত সরকারের পক্ষ থেকে কোনো প্রতিবন্ধকতা জারি করা হয়নি। তাই এই নিয়ে আইনি জটিলতাও নেই।