advertisement
আপনি দেখছেন

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকেই তর্ক ছিলো যে, আক্রান্ত মায়ের মাধ্যমে সদ্য জন্ম নেয়া শিশুটি আক্রান্ত হয় কি না। সম্প্রতি বেশ কিছু নবজাতক ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছে তাদের মায়ের মাধ্যমে। তবে বিখ্যাত সাময়িকী ল্যানসেটে প্রকাশিত এক গবেষণা বলছে, পর্যাপ্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে মায়ের করোনা থাকলেও শিশুর কিছু হবে না। সে মাতৃদুগ্ধ পান করাতে পারবে এবং একই রুমে থাকতে পারবে।

new born baby 03স্বাস্থ্যবিধি মানলে করোনা আক্রান্ত মায়ের থেকে নবজাতকরা আক্রান্ত হবে না

প্রকাশিত গবেষণায় বলা হয়, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পরও একজন মা তার শিশুকে মাতৃদুগ্ধ দিতে পারেন। শিশুর সঙ্গে একই ঘরে থাকতে পারেন। তবে নিয়ন্ত্রিত স্বাস্থ্যবিধি ছাড়া তা করা সম্ভব হবে না। মাস্ক পড়ার পাশাপাশি আক্রান্ত মাকে সবসময় হাত পরিষ্কার করে রাখতে হবে।

আক্রান্ত মায়েদের নিজ শিশুর সেবায় বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়ে বলা হয়, শিশুর কাছে যাওয়ার আগে খুব ভালো করে হাত পরিষ্কার করে নিতে হবে। হাতের পাশাপাশি শিশুকে মাতৃদুগ্ধ পান করানোর আগে ভালো করে স্তন পরিষ্কার করতে হবে। কোনোভাবেই নবজাতক শিশুকে মা থেকে দূরে রাখা যাবে না। এই ভুল যেন কেউ না করে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিশুর কাছে গেলে শিশু আক্রান্ত হওয়ার সুযোগ কম।

pandemic symbolic picture2করোনাভাইরাসের প্রতীকী ছবি

মার্কিন গণমাধ্যম ফক্স নিউজের বরাতে জানা যায়, গবেষণায় ১২০ শিশুর শারীরিক অবস্থার পর্যালোচনা করা হয়েছে। এদের মধ্যে ১১৬ শিশুর মায়ের করোনাভাইরাস পজিটিভ ছিল। জন্মের পর কোনো শিশুরই প্রথম ২৪ ঘণ্টায় ভাইরাসটি আক্রান্ত হয়নি। এক সপ্তাহ পর তাদের আবারো শনাক্তকরণ টেস্ট করানো হয়। এর ২ সপ্তাহ পর ৭২ জনের টেস্ট করানো হয়। কোনো টেস্টেই শিশুদের মধ্যে ভাইরাসটির উপস্থিতি পাওয়া যায়নি।

গবেষকরা বলছেন, এক মাস পর তারা ৫৩ শিশুর পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। তখনও কোনো শিশুর মধ্যে লক্ষণ দেখা দেয়নি। আমরা দেখলাম, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও সংক্রমিত না- এমন মায়েদের নবজাতককে বুকের দুধ দেওয়ায় কোনো হেরফের নেই। আক্রান্ত মায়েরা পর্যাপ্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিজ সন্তানকে ভাইরাসটির সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে পেরেছেন।

sheikh mujib 2020