advertisement
আপনি পড়ছেন

মিয়ানমারে গত বছরের শুরুর দিকে অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসে জান্তা সরকার। তখন থেকে দেশটির অবস্থা খারাপ হতে থাকে। দেড় বছরের মাথায় দেশটির নাগরিকদের অবস্থা খারাপ থেকে ভয়ংকর হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছে জাতিসংঘ। খবর আল জাজিরা।

myanmar protest 1মিয়ানমারে জান্তা সরকারবিরোধী বিক্ষোভ, ফাইল ছবি

মিয়ানমারে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক বিশেষ প্রতিবেদক টম অ্যান্ড্রুজ বলেছেন, গত বছর সেনাবাহিনী ক্ষমতা দখলের কারণে মিয়ানমারের ৫৪ মিলিয়ন মানুষ এখন ভয়ংকর অবস্থায় পৌঁছে গেছে। জেনেভায় জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের সাথে কথা বলার সময় অ্যান্ড্রুস মন্তব্য করেন, ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারির সামরিক অভ্যুত্থানের কারণে সৃষ্ট সংকট মোকাবেলায় আন্তর্জাতিক যে পদক্ষেপগুলো নেওয়া হয়েছিল, সেগুলো ব্যর্থ হয়েছে। অন্যদিকে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীও যৌন সহিংসতা, নির্যাতন, হত্যা, মানবতার বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধসহ নানা ধরনের অপরাধে যুক্ত হয়ে পড়েছে।

উত্তর-মধ্য সাগাইংয়ের একটি স্কুলে হেলিকপ্টার হামলায় অন্তত ১১ শিশু নিহত হওয়ার ঘটনার একদিন পর বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) কাউন্সিলে দেওয়া বক্তব্যে অ্যান্ড্রুজ এসব কথা বলেন।

janta policeবিক্ষোভকারীদের ধরে নিয়ে যাচ্ছে মিয়ানমার পুলিশ, ফাইল ছবি

২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে অং সান সু চির নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতায় বসে মিন অং হ্লাইং নেতৃত্বাধীন জান্তা সরকার। পরে সু চিসহ দেশটির প্রধানমন্ত্রীকে গ্রেপ্তার করা হলে দেশটিতে বিক্ষোভ শুরু হয়। সেই বিক্ষোভ ঠেকাতে কঠোরপন্থা অবলম্বন করে জান্তা সরকার। সমান তালে জবাব দেয় সাধারণ জনগণও।

একটি পর্যবেক্ষক দলের দেওয়া তথ্য মতে, অভ্যুত্থানের পর গত দেড় বছরে মিয়ানমারে প্রায় ২ হাজার ৩০০ মানুষ নিহত হয়েছেন। এ সময় গ্রেপ্তার করা হয়েছে ২৯৫ জন শিশুসহ হাজার হাজার নাগরিককে। মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে ৮৪ রাজনৈতিক বন্দিকে। দেশের সামগ্রিক অর্থনৈতিক অবস্থাও তলানির দিকে। সবমিলিয়ে সামরিক শাসনের কবলে দেশটির জনগণের অবস্থা মোটেও ভালো নেই।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর