advertisement
আপনি দেখছেন

সংযুক্ত আরব আমিরাতের আহমেদ নাসের আল রাইসি আগামী চার বছরের জন্য আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থা ইন্টারপোলের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার তুরস্কে এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। রাইসির মূল প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন চেক পুলিশ কর্মকর্তা কর্নেল সারকা হাভরানকোভা।

interpol chairmanআহমেদ নাসের আল রাইসি

মেজর জেনারেল পদবীধারী আল রাইসি বর্তমানে সংযুক্ত আরব আমিরাতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিদর্শক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি ইন্টারপোলের সদস্য ১৪০টি দেশের প্রতিনিধিদের দ্বারা নির্বাচিত হয়েছেন।

এর মধ্য দিয়ে ১৯২০-এর দশকে ইন্টারপোল প্রতিষ্ঠার পর মধ্যপ্রাচ্যের প্রথম প্রার্থী হিসেবে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেন ড. আহমেদ নাসের আল রাইসি। এর আগে অবশ্য ইন্টারপোলের নির্বাহী কমিটিতে কাজ করেছেন তিনি। ইন্টারপোলের সাংগঠনিক কাঠামোতে রাইসির সভাপতি পদটি মূলত আলঙ্কারিক। সংগঠনটির দৈনন্দিন কার্যক্রম পরিচালনার দায়িত্ব এর মহাসচিব ইওর্গেন স্টকের।

interpolইন্টারপোলের নতুন চেয়ারম্যান

ব্যাপক সমর্থন পেয়ে নির্বাচিত হলেও জার্মানসহ বেশ কয়েকটি দেশ তার সমালোচনা করে। এসব দেশের প্রতিনিধিরা বলেন, আল-রাইসি আন্তর্জাতিক এই সংস্থার সুনামকে বিপদে ফেলবেন। কারণ তিনি নিজেই বলপূর্বক গুম, নির্বিচারে আটক, নির্যাতন ও যৌন নিপীড়নের অভিযোগে অভিযুক্ত।

এসব অপরাধ কখনো তার অধীনে এবং আবার কখনো সরাসরি নিজের অংশগ্রহণে সংঘঠিত হয়েছে। আরব আমিরাতের কয়েকজন শীর্ষ পর্যায়ের রাজনৈতিক বন্দিদের ওপর নির্যাতন চালানোর অভিযোগে তার বিরুদ্ধে ফ্রান্স, তুরস্কসহ কয়েকটি দেশে মামলা রয়েছে। অবশ্য রাইসি সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

ইন্টারপোলের বার্ষিক বাজেট প্রায় ১৫ কোটি ডলার। অভিযান চালাতে সংস্থাটি সদস্য দেশগুলোর সহায়তার ওপর নির্ভর করে থাকে। মানব পাচার, মাদক পাচার এবং হাই প্রোফাইল অপরাধীদের ধরাই সংস্থাটির মূল লক্ষ্য।